সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে এইচআইভি এইডস প্রতিরোধে সেনসিটাইজেশন মিটিং


393 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে এইচআইভি এইডস প্রতিরোধে সেনসিটাইজেশন  মিটিং
ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বুধবার সকাল ১০ টায় সময় বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা  লাইট হাউস কনসোর্টিয়াম সাতক্ষীরা ডিআইসি কর্তৃক আয়োজিত, দি গ্লোবাল ফান্ডের অর্থায়নে কন্টিনিউয়েশন অফ দি প্রায়োরাটাইজড এইচআইভি প্রিভেনশন সার্ভিসেস এ্যামং কি পপুলেশন ইন বাংলাদেশ  প্রকল্পের কার্যক্রম ও প্রকল্পের লক্ষিত জনগোষ্টির সঠিক সেবা নিশ্চিত করা, প্রকল্পের উপকারভোগীদের অধিকার রক্ষার জন্য স্থানীয় পর্যায়ে  সরকারী কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, এনজিও প্রতিনিধি, ধর্মীয় নেতা, শিক্ষক , আইনজীবি, স্বাস্থ্য সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও মানবাধিকারকর্মীদের নিয়ে জেলা সিভিল সার্জন এর কার্যালয়ের  সম্মেলন কক্ষে এইচআইভি/এইডস প্রতিরোধে সেনসিটাইজেশন  মিটিং  অনুষ্ঠিত  হয় । উক্ত মিটিং এ  সভাপতিত্ব করেন, ডাঃ উৎপল কুমার দেবনাথ, সিভিল সার্জন , সাতক্ষীরা । প্রধান অতিথি / রিসোর্স পারসন  হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব, সৈয়দ ফারুক আহমেদ , অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট,সাতক্ষীরা ।  মিটিং এ স্বাগত বক্তব্য,  লাইট হাউস  সংস্থার পটভুমি, মিশন ও ভিশন , লক্ষ্য- উদ্দেশ্য ,  কৌশলগত এরিয়া / কার্যক্ষেত্র ,কর্ম-এলাকাসমূহ, বর্তমান প্রকল্প সংখ্যা ,কন্টিনিউয়েশন অফ দি প্রায়োরাটাইজড এইচআইভি প্রিভেনশন সার্ভিসেস এ্যামং কি পপুলেলেশন ইন বাংলাদেশ প্রকল্পের কর্ম-এলাকা, প্রকল্পের লক্ষ্য- উদ্দেশ, ডিআইসির কর্মী পরিচিতি ,প্রকল্পের লক্ষিত জনগোষ্ঠী কারা , সেবার ধরণ, ত্রৈমাসিক ডিআইসির অগ্রগতির প্রতিবেদন, বাংলাদেশ- বিশ^ এইচআইভি ও এইডস পরিস্থিতি ,এইচআইভি কিভাবে ছড়ায় ,এইচআইভি সংক্রমন থেকে নিরাপদ থাকার উপায় ,এইচআইভি ও এইডসের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্টি কারা অংশগ্রহণকারীদের কাছে প্রত্যাশা এবং সেনসিটাইজেশন মিটিং এর  প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন ডিআইসি ম্যানেজার মোহাম্মদ সন্জু মিয়া। তারপর শুরু হয় মুক্ত আলোচনা। মুক্ত আলোচনায় অংশ নিয়ে অংশগ্রহণকারীগণ প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন এবং চলমান কার্যক্রম সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করার পরামর্শ ও সহযোগিতার আশ^াস দেন । প্রধান অতিথি তাহার বক্তব্যে বলেন, সকল পেশাজীবি মানুষের অংশগ্রহণ ও সচেতনতা সৃষ্টির  মাধ্যমেই এইচআইভি /এইডস প্রতিরোধ করা সম্ভব। আর লাইট হাউস ২০১০ সাল থেকে এই প্রকল্পের কার্যক্রম সুনামের সাথে বাস্তবায়ন করে আসছে । এই প্রকল্পের কার্যক্রম বাস্তবায়নের ফলে প্রকল্পের লক্ষিত জনগোষ্ঠী বিশেষ করে  হিজড়া জনগোষ্ঠীদের মাঝে এইচআইভি প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে। লাইট হাউসের কার্যক্রম বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসন ইতিপূর্বেও সহযোগিতা করে যাচ্ছে ভবিষ্যতেও সহযোগিতা করা হবে । তিনি জেলা স্বাস্থ্য বিভাগে সাথে সমন্বয় করে প্রকল্পের কার্যক্রম বাস্তবায়ন করার জন্য পরামর্শ দেন । সভাপতির বক্তব্যে সিভিল সার্জন বলেন , লাইট হাউস কনসোর্টিয়াম এইচআইভি/এইডস প্রতিরোধে ঝুঁকিপূর্ণ পূরুষ এবং হিজড়া জনগোষ্ঠী নিয়ে যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে তা বাংললাদেশ সরকারের একটি প্রকল্প । লাইট হাউস আইসিডিডিআর,রির কারিগরি সহায়তায় বাস্তবায়নকারী সংস্থা হিসেবে  কাজ করছে । এই প্রকল্পের লক্ষিত জনগোষ্ঠী আসলেই এইচআইভির জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ এবং তারা সমাজের অবহেলিত জনগোষ্ঠী। তিনি আরও বলেন হিজড়া জনগোষ্ঠীর চিকিৎসা সেবা সহজে পওয়ার জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালসহ সকল সেবা কেন্দ্রে  প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে । লাইট হাউস কনসোর্টিয়ামের কার্য়ক্রমে সব সময়  জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে সহযেগিতা করা হবে । এছাড়াও মিটিং এ উপস্থিত ছিলেন ডাঃ মোঃ আবুল হোসেন –উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা,সদর- সাতক্ষীরা,এম রফিক- সাংবাদিক-দৈনিক কাফেলা, মোঃ আব্দুস সামাদ-সাংবাদিক, দৈনিক পত্রদূত, মোঃ আলতাব হোসেন বাবু, সাংবাদিক, ভয়েজ অব সাতক্ষীরা, মোঃ মাহমুদুল হাসান-পেশ ঈমাম সদর থানা জামে মসজিদ, এস এম মামুনুর রশীদ-পেশ ঈমাম বাসটার্মিনাল জামে মসজিদ, পবিত্র কুমার মিত্র প্রভাষক সিটি কলেজ , মোঃ আনারুল ইসলাম প্রভাষক ঝাউডাঙ্গা কলেজ, এস,এম শরীফ আজমীর হোসাইন, মোঃ হায়দার আলী-এ্যাডভোকেট,অনিমা রানী মন্ডল-কাউন্সেলর-সাতক্ষীরা পৌরসভা, কাজী ফিরোজ রশীদ- কাউন্সেলর-সাতক্ষীরা পৌরসভা, মোঃ গোলাম মোস্তফাÑব্র্যাক, আবু বক্কর সিদ্দিক -মেরী ষ্টোপস ক্লিনিক , শাম্মী আক্তার- প্যারামেডিক, পারভীন আক্তার-আউটরিচ সুপারভাইজার, মোঃ গোলাম আযম-আউটরিচ সুপারভাইজার, মোঃ শরিফুল ইসলাম-পিয়ার এডুকেটর, মোঃ জিল্লুর রহমান-–পিয়ার এডুকেটর, উত্তম কুমার মিত্র ও মোঃ ইব্রাহিম হোসেন। মিটিং পরিচালনা করেন মোঃ হারুন-অর রশিদ-প্যারামেডিক কাম কাউন্সেলর ।