সাতক্ষীরা সেতুবন্ধন নেটওয়ার্কের বার্ষিক সাধারন সভা


260 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা সেতুবন্ধন নেটওয়ার্কের বার্ষিক সাধারন সভা
নভেম্বর ১৬, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :

এসিড সন্ত্রাসের শিকার হয়ে যারা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন তাদেরকে হতাশ না হবার আহবান জানিয়ে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাসেম মো. মহিউদ্দিন বলেন তাদের সামাজিক মর্যাদা রক্ষায় সকলকে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন তাদের পুনর্বাসন , কর্মসংস্থান এমনকি সমাজে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতেও সহায়তা দিতে হবে ।

তাদের সাথে সরকার এবং দেশের সুশীল সমাজ রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। আইনের কঠোর প্রয়োগের মাধ্যমে এসিড সন্ত্রাসীদের প্রতিহত করার আহবান জানিয়ে জেলা প্রশাসক বলেন এসডি সন্ত্রাস সৃষ্টি করলে কেউ আইনের আওতার বাইরে থাকতে পারবে না।

বুধবার সাতক্ষীরা সেতুবন্ধন নেটওয়ার্কের বার্ষিক সাধারন সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে জেলা প্রশাসক এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন সাতক্ষীরার এসিড সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সবাই রুখে দাঁড়ান। এর বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলুন।

তিনি বলেন জেলা প্রশাসক হিসাবে এসিড আক্রান্তদের সব ধরনের সহায়তা দেওয়া হবে। এ প্রসঙ্গে তিনি এসিডের যথেচ্ছ ব্যবহার বন্ধেরও আহবান জানিয়ে বলেন সন্ত্রাসে ব্যবহারের জন্য কেউ বোইনিভাবে এসিড সরবরাহ করলেও তিনিও আইনের আওতায় আসবেন।

সাতক্ষীরা সুশীল সমাজের আহবায়ক জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেনের সভাপতিত্বে সদর উপজেলা মিলনায়তনে আয়োজিত সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তারাময়ী মুখার্জী, সদর উপজেলা নির্বাহী

অফিসার মো. নুর হোসেন সজল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর ইসলাম , সাতক্ষীরা সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি ) মনিরা পারভিন, অ্যাকশন এইডের নুরুন্নাহার খাতুন, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সুভাষ চৌধুরী , প্রথম আলোর

কল্যাণ ব্যানার্জি , সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক এম কামরুজ্জামান , অ্যাড. নাজমুন্নাহার ঝুমুর , মহিলা পরিষদ সম্পাদক জোসনা দত্ত এবং এসিড আক্রান্ত নারী গঙ্গা দাসী ।

তারা বলেন এসিড সন্ত্রাসের মতো ভয়াবহ সহিংসতারোধে সামাজিক সচেতনতা দরকার। কেবল আইন প্রয়োগই যথেষ্ট নয় উল্লেখ করে তারা বলেন এর জন্য চাই সামাজিক আন্দোলন।

এসিডের যথেষ্ট ব্যবহাররোধে নজরদারি বৃদ্ধির পাশাপাশি এসিড আক্রান্তদের সহযোগিতা ও পুনর্বাসনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করতে হবে। বর্তমান সময়ে এসিড সন্ত্রাস বহুলাংশে হ্রাস পেলেও এসিডের বিকল্প হিসাবে দুর্বৃত্তরা ভিন্ন পদার্থ ব্যবহার করে

সহিংসতার সৃষ্টি করছে। তারা আরও বলেন প্রতিপক্ষকে হয়রানি করার জন্য এসিড ব্যবহার করা গুরুতর অপরাধ । এর সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের কথা উল্লেখ করে বক্তারা বলেন বাংলাদেশে এই সন্ত্রাস বহুলাংশে কমে এলেও এসিডের বিকল্প ব্যবহার করে দুর্বৃত্তরা

সহিংসতা ছড়াচ্ছে। এসব ব্যপারে যথাযথ আইন প্রয়োগের পাশাপাশি প্রতিরোধে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। সমাবেশে এসিড সন্ত্রাসের শিকার নারীরা উপস্থিত ছিলেন।

বেসরকারি সংস্থা স্বদেশ ও অ্যাকশন এইডের যৌথ উদ্যোগে স্বদেশের নির্বাহী পরিচালক মাধব দত্তের সঞ্চালনায় সমাবেশে সাতক্ষীরা জেলায় এসিড আক্রান্তের পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়।

এতে বলা হয় ২০০১ সাল থেকে এ পর্যন্ত সাতক্ষীরায় ১৬৫ জন এসিড সন্ত্রাসের নির্মম শিকার হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১১১ জন নারী। অন্যরা শিশু ও পুরুষ। চলতি ২০১৬ সালে সাতক্ষীরায় একটি মাত্র এসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে জানিয়ে অনুষ্ঠানে বলা হয় এসিড

সন্ত্রাস শুন্যের কোঠায় আনতে তারা সরকারের সহায়তায় কাজ করে যাচ্ছেন। এসিড আক্রান্ত রোগীর জন্য করনীয় বিষয়ও এতে উল্লেখ করা হয়।
##