সাড়ে ৫ কি.মি. দীর্ঘ পতাকা দেখতে মাগুরা যাচ্ছেন জার্মান কূটনীতিক


402 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাড়ে ৫ কি.মি. দীর্ঘ পতাকা দেখতে মাগুরা যাচ্ছেন জার্মান কূটনীতিক
জুন ৪, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে এবার জমি বিক্রি করে প্রিয় দল জার্মানির জন্য সাড়ে ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পতাকা বানিয়েছেন মাগুরার ‘পতাকা আমজাদ’ নামে পরিচিত আমজাদ হোসেন। গত বিশ্বকাপের সময় তিনি বানিয়েছিলেন জার্মানির সাড়ে ৩ কিলোমিটার দীর্ঘ পতাকা। এবার সেটিকে আরও ২ কিলোমিটার বাড়ালেন।

মঙ্গলবার মাগুরা সদর উপজেলার নিশ্চিন্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে এই পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রদর্শন করবেন আমজাদ। আর এই পতাকা দেখতে মাগুরায় আসছেন বাংলাদেশে জার্মান দূতাবাসের শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক কর্মকর্তা তামারা কবিরসহ জার্মান কূটনীতিক আইনেস নেধার্থ ও কারেন ওইজুরা।

মাগুরার সদর উপজেলার ঘোড়ামারা গ্রামের সাধারণ কৃষক আমজাদ হোসেন। তিনি জানান, ২০১৪ সালে সাড়ে ৩ কিলোমিটারের পতাকা তৈরির জন্য তার ৫০ শতক জমি বিক্রি করেন। এই পতাকা তৈরিতে তিনি শহিদুল ইসলাম রেন্টু, জাহাঙ্গীর হোসেন ও সাইদ মোল্যা নামে ৩ দর্জিকে নিয়োগ করেন; যাদের মজুরি হিসেবে দিতে হয়েছিল প্রায় ৪০ হাজার টাকা। এবার ওই দর্জিসহ নতুন কিছু দর্জি নিয়ে তৈরি করেছেন সাড়ে ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পতাকা। তাতে খরচ হয়েছে ২ লক্ষাধিক টাকা। আর এই টাকা যোগাড়ে তিনি আরও ১০ শতক জমি বিক্রি করেছেন।

তবে টাকা খরচের বিষয় নিয়ে তিনি মোটেও চিন্তিত নন। জার্মানি বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হলে বরং আরও বেশি টাকা খরচ করে জমকালো অনুষ্ঠান করবেন বলে জানিয়েছেন ফুটবলপ্রেমী মানুষটি।

আমজাদ জানান, তার শেষ ইচ্ছা, ২০২২ বিশ্বকাপে তিনি মাগুরা-যশোর সড়কে মাগুরা থেকে সীমাখালী পর্যন্ত জার্মানির ২২ কিলোমিটার দীর্ঘ পতাকা উপহার দেবেন প্রিয় দলকে।

গ্রামের মানুষও আমজাদের এই পতাকা নিয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত। কেননা এই পতাকা দেখতেই ২০১৪-এর বিশ্বকাপ ফাইনালের পর ঘোড়ামারা গ্রামে এসেছিলেন জার্মান চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স ড. ফার্দিনান্দ ফন ফার্সি ওয়েহে। ওই বছরের ১২ জুলাই তিনি আমজাদকে মাগুরা স্টেডিয়ামে জার্মানির পক্ষ থেকে সংবর্ধনা ও লিখিতভাবে জার্মান ফ্যান ক্লাবের সদস্য পদ দেন। বিশ্বকাপে জার্মান দলের জয়ে আমজাদ গণভোজের আয়োজন করেন। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে আমজাদকে নিয়ে বেশ কিছু সংবাদও প্রকাশিত হয়।