সুন্দরবনের জলদস্যু আমির আলী বাহিনী’র সদস্য ফরিদ গ্রেফতার : ৪ টি বন্দুক উদ্ধার


437 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সুন্দরবনের জলদস্যু আমির আলী বাহিনী’র সদস্য ফরিদ গ্রেফতার : ৪ টি বন্দুক উদ্ধার
অক্টোবর ১৬, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

খুলনা    প্রতিনিধি :
সুন্দরবনের কুখ্যাত জলদস্যু ফরিদ হোসেনকে (২৪) গ্রেফতার করা হয়েছে। সে দস্যুদল আমির আলী বাহিনী’র সক্রিয় সদস্য। তার কাছ থেকে ৪টি বন্দুক উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় র‌্যাব-৬ খুলনার সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংএ এ তথ্য জানানো হয়।
প্রেস ব্রিফিংএ জানানো হয়, বৃহস্পতিবার ভোর রাতে র‌্যাব-৬ ও বন বিভাগ গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে সুন্দরবন অঞ্চলের সাতক্ষীরা রেঞ্জের কাঠেশ্বর বন টহল ফাঁড়ি এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় স্থানীয় ভারানী-হেতালবুনিয়া খালের মুখে কালির খালের পূর্বপাড় থেকে জলদস্যু আমির আলী বাহিনীর সদস্য মোঃ ফরিদ হোসেনকে ৪ টি বন্দুকসহ গ্রেফতার করা হয়। সে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার ৯নং সরা গ্রামের হাফিজুল ইসলামের ছেলে। তবে অভিযান টের পেয়ে জলদস্যু বাহিনীর অন্য সহযোগীরা গভীর জঙ্গলে পালিয়ে যায়।
প্রেস ব্রিফিংএ র‌্যাব-৬, খুলনার (সিপিসি-১) কোম্পানী কমান্ডার লেঃ কমান্ডার এম মাহ্ফুজুল ইসলাম বলেন, সুন্দরবনের মোট আয়তন ৬ হাজার ১৭ বর্গ কিলোমিটার। যা বনবিভাগ পূর্ব ও পশ্চিম দুই অংশে বিভক্ত। খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলার অন্তর্গত সুন্দরবনের অংশটি নিয়ে গঠিত পশ্চিম সুন্দরবন র‌্যাব-৬ এর দায়িত্বপূর্ন এলাকা। সরকার কর্তৃক গঠিত টাস্কফোর্স সুন্দরবন এলাকায় জলদস্যুদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা ও দস্যুতা দমনের জন্য কাজ করছে। এরই অংশ হিসেবে র‌্যাব-৬, খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট জেলার অন্তর্গত পশ্চিম সুন্দরবন এলাকায় জলদস্যূ ও বনদস্যুদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে।
তিনি আরও জানান, পশ্চিম সুন্দরবন এলাকায় দুধর্ষ দস্যু রাজু বাহিনী, জাহাঙ্গীর বাহিনী, আনারুল বাহিনী ও আমির আলী বাহিনী দীর্ঘদিন যাবৎ দস্যুতা চালিয়ে আসছে। এ বাহিনীগুলোর বিরুদ্ধে  র‌্যাব-৬  নিয়মিত অভিযান অব্যাহত থাকবে।