সুন্দরবনে বনদস্যুর থাবায় শ্যামনগরের ৫ জেলে অপহরণ


282 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সুন্দরবনে বনদস্যুর থাবায় শ্যামনগরের ৫ জেলে অপহরণ
জুন ১০, ২০১৬ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ,শ্যামনগর :
সাতক্ষীরা রেঞ্জ পশ্চিম সুন্দরবনের গহিনে নদীতে মাছ ধরার সময় ৫ জেলেকে মুক্তিপনের দাবীতে অপহরণ করেছে ভারতীয় বনদস্যু সুমন মাস্টার ও কানাই বাহিনীর সদস্যরা। গত বুধবার সকাল ৯টার দিকে সুন্দরবনে ছায়া কপ্পুরী এলাকা থেকে জেলেদের অপহরণ করা হয়। অপহৃত জেলেরা হলো রমজাননগর ইউনিয়নের পার্শ্বেখালী গ্রামের মৃত গোলাপ গাজীর ছেলে মোশারফ গাজী (২৫) এবং একই একই গ্রামের সুলতান গাজীর ছেলে শফিকুল গাজী (৩৫), সুরত গাজীর ছেলে আতিয়ার গাজী (২৫), নূর আলী গাজীল ছেলে ফজলু গাজী (৪০) ও টেংরাখালী গ্রামের গফুর সরদারের ছেলে ফজর আলী (২৫)। ফিরে আসা জেলে, পার্শ্বেখালী গ্রামের রাজ্জাক সরদার জানায়, বন অফিস হইতে অনুমতি নিয়ে নদীতে মাছ ধরার সময় বনদস্যু সুমন মাস্টার ও কানাই বাহিনীর সদস্যরা জেলেদের অপহরণ করে ভারতীয় সীমান্তে নিয়ে যায়। জেলেদের মুক্তির জন্য ৩ লাখ টাকা দাবী করা হয়েছে।

অপরদিকে সুন্দরবনের গাড়ান নদীতে মাছ ধরে বাড়িতে ফিরে আসার সময় গত বুধবার সকাল ৮ টার দিকে ভারতীয় বনরক্ষীরা ৫ জেলেকে ধরে নিয়ে যায়। ধৃত জেলেরা হলো রমজাননগর ইউনিয়নের পার্শ্বেখালী গ্রামের জুব্বার সরদারের ছেলে আজিজ সরদার (৪৫) এবং একই এলাকার গফুর সরদারের ছেলে ইশারাত (১৮), সুলতান গাজীর ছেলে খোকন গাজী (২৮), জহুর গাজীর ছেলে আলিম গাজী (২৫) ও মৃত মানিক শেখের ছেলে মোকছেদ শেখ (৫৫)। ফিরে আসা জেলে আজিজ সরদার জানায়, বন বিভাগ হইতে অনুমতি নিয়ে নদীতে মাছ ধরে বাড়ীতে ফিরে আসার সময় ভারতীয় বনরক্ষীরা জেলেদের পাকড়াও করে ভারতীয় সীমান্তে নিয়ে যায়। এ সময়ে জেলেদের কাছ থেকে ২ লক্ষাধিক টাকার মাছ ও একটি নৌকা সহ ব্যবহৃত যাবতীয় মালামাল লুট করে সুন্দরবনে বুড়ির ডাবুর খালে ছেড়ে দেয়। সে আরও জানায়, বাঘের ভয়ে জেলেরা সারারাত  কেওড়া গাছে অবস্থান করার পর গতকাল বৃহসম্পতিবার অন্য একটি নৌকা যোগে বাড়ীতে ফিরে আসে। এ বিষয়ে কৈখালী বনষ্টেশন কর্মকর্তা নুজরুল ইসলামের সাথে কথা হলে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।