সুস্থ থাকতে কলা নয়, খোসা বেশি উপকারী


404 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সুস্থ থাকতে কলা নয়, খোসা বেশি উপকারী
অক্টোবর ১৯, ২০১৫ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম ডেস্ক :

সুস্থ থাকার জন্য ফলের গুরুত্ব অপরিসীম। শক্তি বৃদ্ধি বা ওজন কমানো কিছুর জন্য খাদ্য তালিকায় রাখা হয় ফল।  তবে পুষ্টিবিদরা জানাচ্ছেন একটা নতুন তথ্য। ফলের চাইতে বেশি উপকারী ফলের খোসা এমনটাই দাবি তাদের।

পুষ্টিবিদরা জানান, কলার চাইতে বেশি উপকারি কলার খোসা। কলার মধ্যে থাকা ভিটামিন বি-৬, বি-১২, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম যেমন হজমে সাহায্য করে, তেমনই কলায় থাকা প্রচুর পরিমাণ ফাইবার পেট পরিষ্কার রাখে। কলা যেমন আমরা এমনি খেতে অভ্যস্ত, তেমনি কর্নফ্লেক্সের সঙ্গে, কলার পুডিং, মাফিন, কেক এমনকি কলার বড়াও বেশ উপাদেয়। তবে কলা যেভাবেই খাই না কেন খোসাটি কিন্তু আমরা ফেলেই দেই।

অথচ অনেকেরই জানা নেই এই কলার খোসাতেই থাকে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন ‘এ’। যা শুধু শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাই বাড়িয়ে তোলে নয়, যেকোনও সংক্রমণ রুখতেও অত্যন্ত উপকারী। খোসার মধ্যে থাকা লুটিন নামক পদার্থ দৃষ্টিশক্তি বাড়াতেও উপকারী। এছাড়াও কলার খোসায় থাকা প্রচুর পরিমান অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট শরীরের কোলেস্টেরলের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে রাখে। শরীরে রক্তচাপের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহার্য্য করে এই কলার খোসা।

সবুজ না হলুদ কোন খোসা বেশি উপকারী?

জাপানের এক গবেষণায় দেখা গেছে, সবুজ খোসার থেকে বেশি উপকারী হলুদ খোসা। এই খোসা রক্তে শ্বেতকণিকার পরিমাণ ঠিক রেখে ক্যান্সার মোকাবিলা করতে পারে। সবুজ খোসার ক্ষেত্রে ১০ মিনিট খোসা সেদ্ধ করে খেলে উপকার পাওয়া যাবে। অন্যদিকে সবুজ খোসার মধ্যে থাকা অ্যামাইনো অ্যাসিড ট্রিপ্টোফ্যানের কারণে রাতে ভাল ঘুম হয়। অনেক গবেষণায় দেখা গিয়েছে সবুজ খোসার মধ্যে থাকা সিরোটোনিন অবসাদের মোকাবিলা করতেও সক্ষম। আবার ডোপামিনের সাহায্যে কিডনিতে রক্ত চলাচল ভাল হয়।