সেপটিক ট্যাঙ্ক বিস্ফোরণে অন্তঃসত্ত্বা নারী ও দুই শিশু নিহত


131 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সেপটিক ট্যাঙ্ক বিস্ফোরণে অন্তঃসত্ত্বা নারী ও দুই শিশু নিহত
মে ৮, ২০২০ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় একটি বহুতল ভবনের সেপটিক ট্যাঙ্ক বিস্ফোরিত হয়ে দুই শিশু ও এক অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোরে উপজেলার উইলসন রোডের দীঘিরপাড় মোল্লা বাড়ি এলাকার রফিকুল ইসলাম মোল্লার মালিকানাধীন ৫তলা রাবেয়া মঞ্জিলের নিচ তলায় বিস্ফোরণের ওই ঘটনা ঘটে।

বিস্ফোরণে ওই বাড়ির নিচ তলার ভাড়াটে খোরশেদ আলমের ২ ছেলে মাসনুন (১৩) ও জিসান (৮) ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। বিস্ফোরণে পাশের রতন মিয়ার মালিকানাধীন চারতলার একটি ফ্ল্যাটের দেয়াল ধসে পাশের টিনশেড বাড়ির ওপর পড়লে ওই বাড়ির বাসিন্দা আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা লাবনী আক্তার (২৮) গুরুতর আহত হয়। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাবার পথেই তিনি মারা যান।

ওই ঘটনায় আহত হন নারীসহ আরও ৫ জন। তাদের বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বিস্ফোরণে আশেপাশের আরও চারটি ভবন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ভোরে বিকট বিস্ফোরণের পর ভাড়াটিয়া খোরশেদ আলমের স্ত্রী ও তার স্বজনদের আর্ত চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। এ সময় ওই পরিবারের সদস্যরা বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করছিলো। পরে এলাকাবাসী পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন মাসুনুন ও জিসানের মরদেহ উদ্ধার করে।

নিহত দুই শিশুর মা লামিয়া আক্তার রুনা বলেন, সেহরি খেয়ে তার দুই ছেলে ঘুমাতে যায়। যে কক্ষে তারা ঘুমাতে যায় তার নিচে সেফটিক ট্যাঙ্ক ছিল। বিস্ফোরণে ফ্ল্যাটের চারটি কক্ষই তছনছ হয়ে গেছে।

বিস্ফোরণে লামিয়া আক্তার রুনা, নিহত লাবনীর মেয়ে নাবিলা, প্রতিবেশি তামান্না, রুবেল শেখ ও মোঃ শরীফ আহত হন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

বন্দর ফায়ার স্টেশনের স্টেশন অফিসার জিন্নাত আলী খান বলেন, ভবনটির নির্মাণ ত্রুটির কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। মানুষজন রাজউক বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ডিজাইন অনুমোদন করে এক রকম, আর বানায় আরেক রকম। ফলে বিভিন্ন স্থানে প্রায়ই সেপটিক ট্যাংকের বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, বিস্ফোরণে দুই শিশু ও এক অন্তঃসত্ত্বা নারী নিহত এবং আরো ৫ জন আহত হয়েছেন।