স্ট্রিকের বিকল্প হিসেবে বিসিবির ভাবনায় ৪ জন


491 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
স্ট্রিকের বিকল্প হিসেবে বিসিবির ভাবনায় ৪ জন
মে ২৩, ২০১৬ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

জাতীয় দলের বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিক মেয়াদ শেষে চলে যেতে চাইলে ধরে রাখার চেষ্টা করবে না বিসিবি। স্ট্রিকের বিকল্প ভাবনাও শুরু হয়ে গেছে। ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান জানিয়েছেন, বিসিবির ভাবনায় আছেন চম্পকা রামানায়েকে, আকিব জাভেদ, চামিন্দা ভাস ও ভেঙ্কটেশ প্রসাদ।

স্ট্রিক এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানাননি বলে পছন্দের বিকল্পদের সঙ্গে যোগাযোগ করেনি বিসিবি। তবে গুছিয়ে রাখছে কাজ।

সপ্তাহখানেক আগে ভারতীয় পত্রিকা দা হিন্দু জানিয়েছে, ভারতের জাতীয় ক্রিকেট একাডেমিতে ফাস্ট বোলিং কোচের চাকরির জন্য আবেদন করেছেন স্ট্রিক। ক্রিকেট একাডেমির চেয়ারম্যান নিরঞ্জন শাহ তাকে পেতে খুবই আগ্রহী।

স্ট্রিক থাকছেন না ধরে নিয়েই তাই ভবিষ্যৎ ভাবছে বিসিবি। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে আকরাম খান জানালেন বিসিবির পছন্দের নামগুলো।

“কোচিং স্টাফ নিয়ে আমাদের চাওয়া একটা সেটেলড ইউনিট যেন থাকে। এজন্য স্ট্রিককে রাখতেই চেয়েছিলাম। এখন সে যদি চলে যায়, আমরা ধরে রাখার চেষ্টা করব না। জোর করে রাখলে ফল ভালো হয় না। বরং চেষ্টা করব আরও ভালো কাউকে আনার।”

“আপাতত আমাদের পছন্দের তালিকায় আছে চম্পকা, আকিব, ভাস ও প্রসাদ। আরও ২-৩ জন আছে। আমরা মনে করি, এদের যে কাউকে আনতে পারলেও খুব ভালো হবে। তবে স্ট্রিক যেহেতু অফিসিয়ালি আমাদের কিছু জানায়নি, আমরাও নতুন কাউকে প্রস্তাব দেইনি। পরিস্থিতি বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

জানা গেছে, বিসিবির পছন্দের তালিকায় শীর্ষে আছেন রামানায়েকে। ২০০৮ সালের মার্চ থেকে দুই বছর বাংলাদেশের বোলিং কোচ ছিলেন সাবেক এই শ্রীলঙ্কান পেসার। বাংলাদেশের সেরা বোলিং কোচ মনে করা হয় তাকেই। কিন্তু ২ বছরের মেয়াদ শেষে একটু বাড়তি পারিশ্রামিক দাবি করায় সে সময় তাকে আর রাখেনি বিসিবি। বোর্ডের সেই সিদ্ধান্ত নিয়ে সে সময় সমালোচনাও হয়েছিল প্রচুর।

বাংলাদেশ ছেড়ে দেওয়ার পর তখন তাকে লুফে নেয় নিজ দেশ শ্রীলঙ্কা। কয়েক দফায় রামানায়েকে ছিলেন শ্রীলঙ্কার বোলিং কোচ। সবশেষ গত বছরও ছিলেন দায়িত্বে। শ্রীলঙ্কান বোর্ড তাকে দীর্ঘমেয়াদেই চেয়েছিল। কিন্তু পারিবারিক কারণে দেশের বাইরে যেতে না চাওয়ায় লম্বা সময়ের জন্য দায়িত্ব নেননি ৫১ বছর বয়সী এই কোচ।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে দারুণ সফল মেয়াদ শেষে গত এপ্রিলে দায়িত্ব ছেড়ে দেন আকিব। পিএসএল দল লাহোর কালান্দার্সের ক্রিকেট পরিচালনার দায়িত্ব নিতে পারেন তিনি। তবে এখনও চূড়ান্ত হয়নি সেটি।

শ্রীলঙ্কান বোলিং কোচ হিসেবে স্বল্প মেয়াদের দায়িত্ব শেষে পাকাপাকিভাবে কিছু করছেন না ভাস। বোলিং কোচ হিসেবে সাবেক ভারতীয় পেসার প্রসাদেরও সুনাম আছে বেশ।

২০১৪ সালের মে মাসে দুই বছরের চুক্তিতে বাংলাদেশের দায়িত্ব নিয়েছিলেন স্ট্রিক। তার সঙ্গে চুক্তির ধরনটা অবশ্য ছিল একটু ভিন্ন। দুই বছরে ৪৫০ দিন কাজ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ ছিলেন। বাড়তি দিনের জন্য ছিল বাড়তি পারিশ্রামিকের ব্যবস্থা। চলতি আইপিএলে তিনি বোলিং কোচের দায়িত্বে আছেন গুজরাট লায়ন্সে।

বোলিং কোচ নিয়ে দোলাচল থাকলেও প্রধান কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন প্রায় পাকা হওয়ার পথে, জানালেন আকরাম খান।

“কোচের সঙ্গে আমাদের কথা চূড়ান্ত হওয়ার পথে। থাকার ব্যাপারে সম্মতই সে। নতুন চুক্তিতে পারিশ্রামিক তো অবশ্যই বাড়বে। বোর্ডের নীতি অনুযায়ীই সেটা বাড়বে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বোর্ড সভায়।”

জানা গেছে, ২০ শতাংশ বাড়তে পারে হাথুরুসিংহের পারিশ্রামিক। ২ বছরের চুক্তিতে এই শ্রীলঙ্কান কোচ বাংলাদেশে এসেছিলেন ২০১৪ সালের জুনে। ছুটি কাটিয়ে এই মাসের শেষ দিকে হাথুরুসিংহে ফিরবেন বাংলাদেশে। তখনই হতে পারে নতুন চুক্তি।

ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়ণও থেকে যাচ্ছেন। শ্রীলঙ্কান এই ট্রেনার খুশি মনেই বাংলাদেশে থাকতে রাজি বলে জানিয়েছেন ক্রিকেট পরিচালানা বিভাগের চেয়ারম্যান।
##