হুমায়ূনের অরু…


469 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
হুমায়ূনের অরু…
অক্টোবর ১০, ২০১৫ ফটো গ্যালারি বিনোদন
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম ডেস্ক :
রুপালি পর্দায় পা রেখেই জগৎ জয় করা নায়িকার নাম মাহিয়া মাহি। তিনি এখন শরতের আকাশে ফুরফুরে মেজাজে ভেসে বেড়াচ্ছেন। মনজুড়ে তার খুশির বাঁধভাঙা জোয়ার। হবেই না কেন। তার কথায়, ক্যারিয়ারের অল্প সময়ে বলতে পারেন শিশু বয়সেই যদি কেউ আকাশের চাঁদ হাতে পেয়ে যায় তা হলে তো তার জ্ঞান হারাবারই কথা। আমারও হয়েছে তাই। রুপালি পর্দায় আমার হাঁটার বয়স সবেমাত্র তিন বছর। আর এরই মধ্যে অভিনয় করতে যাচ্ছি কলম জাদুকর হুমায়ূন আহমদের মতো বিশাল মাপের একজন ব্যক্তিত্বের উপন্যাসের চলচ্চিত্রে। তাও আবার নির্মাণ করছেন তারই সহধর্মিণী মেহের আফরোজ শাওন। এটি আমার অভিনয় ক্যারিয়ারে একশ’ নম্বরের মধ্যে পুরোটাই পাওয়া।

মাহির এই উচ্ছ্বাস মোটেও বাড়াবাড়ি নয়। কারণ এই সুশ্রী নায়িকা এখন অভিনয় করছেন প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস ‘কৃষ্ণপক্ষ’ অবলম্বনে নির্মিতব্য একই শিরোনামের চলচ্চিত্রে। এতে তার চরিত্র অরুকে ঘিরেই এগিয়েছে কাহিনী। পারিবারিকভাবে বিয়ের আয়োজন হয় অরুর। কিন্তু পরিবারের পছন্দের পাত্রকে বিয়ে করতে নারাজ অরু। ভালোবাসার মানুষ মুহিবকেই [রিয়াজ] বিয়ে করতে অনড় সে। এক পর্যায়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় অরু। আর গল্প পড়ে ঝড়ো বাতাসের কবলে। মানে গল্পের শুরু আর যবনিকা অরুকে ঘিরেই।

খ্যাতিমান কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের এমন একটি উপন্যাসের প্রধান নায়িকা হওয়া চাট্টিখানি কথা নয়। মাহি তার অভিনয়ের শিশু বয়সেই রুপালি পর্দায় আলো ছড়াতে পেরেছেন বলে আজ তার এই পরম পাওয়া। এমন কথা চলচ্চিত্রের মানুষ আর মাহিভক্তদের।

২০১২ সালে ‘ভালোবাসার রঙ’ ছবি দিয়ে বড় পর্দায় জ্বলে উঠেন মাহিয়া মাহি। প্রথম ছবিতেই অভিনয় দক্ষতা দেখাতে পেরেছেন তিনি। মানে ভাগ্যদেবী তার পাশেই ছিলেন। দর্শক এক পলকে লুফে নেন মাহিকে। তারপর শুধুই সাফল্যের আকাশে রঙিন পাখা মেলে উড়ে বেড়ানো। এ পর্যন্ত তার অভিনীত ১০টি ছবি মুক্তি পেয়েছে। বলতে গেলে সবই মনভরে আর প্রেক্ষাগৃহে ভিড় করে দেখেছে দর্শক। তাই ধীরে ধীরে সে পেয়েছেন পায়ের নিচে শক্ত মাটি। এখন সে মাটিতে দাঁড়িয়ে নিজের শক্তিতেই এগিয়ে চলেছেন মাহী। হাঁটতে গিয়ে কোনো লাঠির সাহায্য পড়ছে না তার।

মেহের আফরোজ শাওন অনেকটা হঠাৎ করেই ছবিটি নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেন। নিজের ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে শাওন লিখেছেন ‘কাল দুপুর ৩টা থেকে আজ দুপুর ১টা… ২২ ঘণ্টার মধ্যে অনেক কিছু ঘটে গেল… ৩০ মিনিটের আলোচনায় সিদ্ধান্ত নিলাম ছবি বানাব…!!! ছবির নাম ‘কৃষ্ণপক্ষ’… মুক্তির তারিখ ১৩ নভেম্বর… হাতে আছে এক মাস [মাত্র]… চ্যানেল আই এবং আমার পাগলা পরিকল্পনায় আমাদের সঙ্গী হলো রিয়াজ, মাহিয়া মাহি, তানিয়া আহমেদ, মৌটুসী বিশ্বাস, আজাদ আবুল কালাম, ফারুক আহমেদ, এস আই টুটুল, ইমন সাহা… ঝামেলা সামলানোর ভার নিলেন ইবনে হাসান খান এবং সাজু মুনতাসির… এই অল্প সময়ে এমন দুঃসাহসিক কাজের সিদ্ধান্ত নেওয়া.., এবং প্রিয় মানুষগুলোকে পাশে পাওয়ার পেছনে রহস্য একটাই… হুমায়ূন আহমদের জন্মবার্ষিকীতে আমাদের শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন… ছবি বানানোর স্বপ্ন বুকের মধ্যে নিয়ে বেড়াচ্ছি অনেকদিন ধরে… সেই স্বপ্ন পূরণের তারিখটা হুমায়ূনের জন্মদিনে হতে যাচ্ছে, এর চেয়ে আনন্দের আর কিবা হতে পারে…’

মেহের আফরোজ শাওনের আনন্দ আর স্বপ্নের সারথি এখন অনেকের মধ্যে মাহিয়া মাহি। শাওন তাদের সঙ্গী এবং প্রিয় মানুষ বলেছেন।

মাহির কথায়- এর চেয়ে বড় পাওয়া আর কিছুই নেই আমার জীবনে… আমি এখন হুমায়ূন স্যারের প্রিয় অরু..—সুত্র:-বাংলাদেশ প্রতিদিন।