২৪ ঘন্টা পুলিশি নিরাপত্তায় রাবি শিক্ষক হাসান ইমাম


379 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
২৪ ঘন্টা পুলিশি নিরাপত্তায় রাবি শিক্ষক হাসান ইমাম
মে ২৮, ২০১৬ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

রাবি প্রতিনিধি :
গত ১৯ মে উড়ো চিঠি পাঠিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর মুহাম্মদ হাসান ইমামকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর সার্বক্ষণিক পুলিশি নিরাপত্তা মাধ্যমে চলাফেরা করছেন তিনি ।
শিক্ষকরা হত্যার হুমকি পাওয়ার পর সার্বক্ষণিক পুলিশি নিরাপত্তা দেয়ার ঘটনা গত তিন বছরে বিশ্ববিদ্যালয়ে এটাই প্রথম।
হুমকি পাওয়ার পর দিন থেকেই প্রফেসর হাসান ইমামকে নিরাপত্তার স্বার্থে সার্বক্ষনিক দুই পুলিশ নিয়োগ করেছেন মতিহার থানা পুলিশ ।
শনিবার সকালে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগে ক্লাস নিতে আসার সময় তার সাথে দুইজন পুলিশ লক্ষ্য করা যায়, এসময় শিক্ষক ক্লাসে ঢুকলে পুলিশ সদস্যরা বাহিরে অপেক্ষা করতে থাকেন।
এদিকে গত এক বছরে মুঠোফোন, টেলিফোন ও চিঠির মাধ্যেমে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তত অর্ধ শতাধিক শিক্ষক হত্যার হুমকি পেয়েছেন। তবে পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর দফতরে লিখিত কিংবা মৌখিক অভিযোগ করেছেন অন্তত ২৮ জন শিক্ষক। তাদের ক্ষেত্রে এভাবে সার্বক্ষণিক পুলিশি নিরাপত্তা দেয়া হয়নি।
মমতাজ উদ্দিন কলা ভবনে দায়িত্বরত একজন প্রহরী জানান, গত তিন-চার দিন থেকে ভবনের সামনে পুলিশ গাড়ি নিয়ে থাকছেন। বাহিরে তিনজন ও হাসান ইমামের চেম্বারের সামনে দুইজন পুলিশ অবস্থান করছেন। ওই শিক্ষক যতক্ষণ বিভাগে থাকছেন পুলিশও ততক্ষণ ভবন ও চেম্বারের সামনে অবস্থান করছে।
এ বিষয়ে প্রফেসর মুহাম্মদ হাসান ইমাম বলেন, ‘চাইলে যেকোনো সময় পুলিশ আমাকে নিরাপত্তা দেবে বলে জানিয়েছে। তাই আমার যখন প্রয়োজন হচ্ছে তখন পুলিশকে জানালে তারা নিরাপত্তা দিচ্ছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর মো. মজিবুল হক আজাদ খান বলেন, ‘হুমকি পাওয়া প্রফেসর মুহাম্মদ হাসান ইমামকে সার্বক্ষণিক পুলিশি নিরাপত্তা দেয়া হবে বলে মতিহার থানা থেকে গত বুধবার একটি চিঠি প্রক্টর দফতরে পাঠানো হয়েছে। তবে ওই শিক্ষককে কারা চিঠি পাঠিয়ে হুমকি দিয়েছিল তা এখনও বের করতে পারেনি পুলিশ।’
জানতে চাইলে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) অশোক চৌহান বলেন, ‘হুমকি পাওয়ার পর দিন থেকেই ওই শিক্ষককে সার্বক্ষণিক পুলিশি নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে। বাড়ি, বিশ্ববিদ্যালয়সহ যেকোনো স্থানে ওই শিক্ষক চাইলে পুলিশি নিরাপত্তা পাবেন।’

গত ১৯ মে সকাল ১০টায় ওই শিক্ষকের নিজ বিভাগীয় চেম্বারের দরজার হাতলে গুজে রাখা একটি খামের মধ্যে বেনামী চিঠিটিতে তাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়। চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ‘মুক্তিযুদ্ধের খ-চিত্র নয় এবার আপনার নিজের খ- বিখ- দেহ চিত্রের জন্য প্রস্তুত থাকবেন।’ আর খামের উপরে লেখা ছিলো ‘লাল বার্তা’। এই চিঠি পাওয়ার পর তিনি মতিহার থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করেছিলেন। প্রফেসর হাসান ইমাম ২০১৫ সালে সাপ্তাহিক বিচিত্রা’র আলোকে ‘মুক্তিযুদ্ধের খ-চিত্র’ নামে একটি বই সংকলন করেছেন।###