কয়রায় পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার নামে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ


140 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কয়রায় পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার নামে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ
জানুয়ারি ২১, ২০১৭ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

শেখ মনিরুজ্জামান মনু,কয়রা প্রতিনিধি ::
কয়রা উপজেলার মহেশ্বরীপুর ইউনিয়নের ভাগবা গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে মতলেব শিকারীর বাড়ী অভিমুখে পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে জানা গেছে, ভাগবা গ্রামের মৃত মনোহর মন্ডলের পুত্র তুষার কান্তি মন্ডল পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার নাম করে এলাকার সহজ সরল মানুষের নিকট থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। গ্রাহকরা টাকা দিয়েও দীর্ঘদিন বিদ্যুৎ সংযোগ না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে তার বিরুদ্ধে খুলনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার সহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন। গ্রাহকদের সাথে কথা হলে ভাগবা এইচ বি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রমেশ চন্দ্র ঢালী জানান, বিদ্যুতের সংযোগ দেয়ার নামে বিগত এক বছর পূর্বে এলাকার তুষার কান্তি মন্ডল তার নিকট থেকে ৭ হাজার টাকা নিয়েছেন, একই স্কুলের অফিস সহকারী তপন কুমার মন্ডলের নিকট থেকে ৪ হাজার টাকা, দূর্গাপদ মন্ডলের নিকট থেকে ৬ হাজার টাকা, ফনিভূষণ সানার নিকট থেকে ৪ হাজার ৭শ টাকা, বিকাশ চন্দ্র মন্ডলের নিকট থেকে ৪হাজার ৯শ টাকা, আইয়ুব আলী গাজীর নিকট থেকে ৪ হাজার ৫শ টাকা, রাম প্রসাদ মন্ডলের নিকট থেকে ৫হাজার টাকা সহ এলাকার ৮০-৯০ জন গ্রাহকের নিকট থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে তুষার কান্তি মন্ডলের নিকট জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এ প্রতিনিধিকে জানান, বিদ্যুতের সংযোগ দিতে একটু দেরী হচ্ছে। ৭নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক চিত্ত রঞ্জন মন্ডল বলেন, তুষার কান্তি মন্ডল এলাকার সাধারণ মানুষের নিকট থেকে পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ দেয়ার কথা বলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। যার কারণে দলের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ সহ দূর্ণীতি দ্যমন কমিশনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। কয়রা উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ৩নং মহেশ্বরীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিজয় কুমার সরদার বলেন, তুষারের বিরুদ্ধে আমার কাছে এ ধরণের অভিযোগ আছে। ঘটনা সত্য হলে দূর্নীতিবাজ যেই হোক, তার ব্যাপারে কোন ছাড় নেই।  খুলনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মোঃ শহিদুজ্জামান বলেন, এ ব্যাপারে আমাদের কোন তথ্য জানা নেই। তাছাড়া পল্লী বিদ্যুতের পক্ষ থেকে কোন এজেন্টও নিয়োগ দেওয়া নেই।