শ্যামনগর কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমের আত্বসাৎকৃত ৮৫ বস্তা গম জব্দ


139 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগর কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমের আত্বসাৎকৃত ৮৫ বস্তা  গম জব্দ
জুলাই ১৬, ২০১৭ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ, শ্যামনগর ::

শ্যামনগর ৫ নং কৈখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমের আত্বসাৎকৃত ভিজিএফ এর ৮৫ বস্তা গম আটক করেছে, উপজেলা নির্বাহী অফিসার। পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে বরাদ্ধকৃত ভিজিএফ এর গম ওজনে কম দিয়ে গত ২০ দিন পরে খুচরা মুল্যে বিক্রী করার  অভিযোগে গত

রোববার বিকালে শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুজ্জামান ও প্রকল্প বাস্তাবায়ন কর্মকর্তা মোঃ জাফর রানা চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমের বাড়ীর সামনের সরকারী  মহাজেরীন প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৩৭ বস্তা ও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ৪৮ বস্তা গম জব্দ করেছেন।

এদিকে গত রোববার কৈখালী ইউপির ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বর মতিয়ার রহমান বাদী হয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর গম আত্বসাতের বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেন।

তিনি অভিযোগে বলেন, প্রত্যেক দুস্থ গরীব মানুষ কে ১৩ কেজি ৩০০ গ্রাম করে গম দেয়ার কথা কিন্তু কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম সরকারী নির্দেশ উপেক্ষা করে নিজের ইচ্ছামত ১০ থেকে১১ কেজি করে গম বিলি করেছেন।

এছাড়া দলীয় লোক বাদে কার্ড ধারী অনেককেই গম না দিয়ে তার বাহিনীর মাধ্যমে অসহায় গরীব মানুষের গম  আত্বসাত করে সে গম বিক্রী করতে থাকে।এছাড়া সরকারী ভাবে কোন নির্দেশনা না থাকার সত্বে ও সে গত ২০ দিন ধরে এ গম আত্বগোপন করে রাখে।

এদিকে এ অভিযোগের ভিত্তিতে রোববার বিকালে শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুজ্জামান ও প্রকল্প বাস্তাবায়ন কর্মকর্তা মোঃ জাফর রানা ঘটনাস্থলে যেয়ে আত্বসাতকৃত গম জব্দ করেন। তবে গরীবের গম ওজনে কম দিয়ে গম আত্বসাতের এধরনের অভিযোগ একাধিক ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে রয়েছে বলে জানা গেছে।

এবিষয় শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, মহাজেরীন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হতে ৩৬ বস্তা ও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ৪৮ বস্তা গম পাওয়া গেছে।তবে ইউনিয়নের চারশ”  ভিজিএফ কার্ড ধারী ব্যক্তিদের গম দেয়া হয়নি।

বিষয়টি নিয়ে আমরা মাষ্টার রোল  সহ অন্যান্য কাগজপত্র পর্যালোচনা করে দেখছি। যদি অনিয়ম পাওয়া যায় তাহলে অবশ্যই  আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এব্যাপারে কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমের ০১৯১১৭০৮৩৯৫ নং একাধিক বার  কল করেও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

কৈখালী ইউনিয়নের শতশত মানুষের সামনে আত্বসাতকৃত এগম জব্দ করা হয় বলে সচেতন মহল জানিয়েছেন। তারা গবীরের গম আত্বসাতের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবী করেছেন।

##