সাতক্ষীরা সদর আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী আলিম


722 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা সদর আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী আলিম
জুলাই ২২, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আব্দুর রহমান :
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা-২ (সদর) আসনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বার বার নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল আলিম। প্রকাশ্যে কোন সভা-সমাবেশ না করলেও ইতিমধ্যে তিনি তৃর্ণমূল পর্যায়ে প্রচারণা চালিয়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।
দলীয় একাধিক সূত্র জানায়, নির্বাচনে অংশগ্রহণের ব্যাপারে কেন্দ্র থেকে এখনো কোন সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি। তবে, প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। আগামী সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি ও লাবসা ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল আলিম বিএনপি’র দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশি। তিনি বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করবেন। স্থানীয় রাজনীতিতে আমার সক্রীয় কর্মকান্ড রয়েছে। দলের জন্য বহু বার কারাবরণ করেছি। সাধারণ জনগনের মাঝে আমার জনপ্রিয়তাও রয়েছে। আমি আশা করছি আমিই মনোনয়ন পাবো।’
১৯৭৮ সালে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট মেজর জিয়াউর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে বিএনপিতে যোগদান করেন আব্দুল আলিম। পরবর্তীতে লাবসা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের গ্রাম সরকার ও ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি নির্বাচিত হন। মেজর জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আব্দুস সাত্তারের সময়ে ইউনিয়ন গ্রাম সরকারের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ১৯৮১ সাল থেকে অদ্যবধি সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। ২৭ অক্টোবর ২০১৩ থেকে ১৭ মার্চ ২০১৭ পর্যন্ত জেলা বিএনপির সফল সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কাজ করেছেন। এসময় বহু ত্যাগ ও জেল জুলুমের স্বিকার হন তিনি। বর্তমানে সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি হিসেবে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন দলের কার্যক্রম।
১৯৫৯ সালের ১৫ অক্টোবর লাবসা ইউনিয়নের খেজুরডাঙ্গা গ্রামে আব্দুল আলিম জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মৃত আবুল কাশেম ১৯৬২ থেকে ১৯৭০ সাল পর্যন্ত লাবসা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন। চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম ১৯৮৮ সাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত পর পর ৬ বার বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে অত্যান্ত সুনামের সাথে ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন।
আগামী সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত হলে তার কর্মপরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি বিএনপির কঠিন ক্লান্তিলগ্নে হাল ধরেছিলাম এবং বহুবার জেল খেটেছি। নেত্রী যদি ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করেন তাহলে মনোনয়ন আমারই পাওয়ার কথা। আমি আশাবাদী আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিবেন এবং আমি জনগনের সেবক হিসেবে কাজ করতে পারবো। আমি নির্বাচিত হলে সাতক্ষীরার প্রধান সমস্যা জলাবদ্ধতা নিরসন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, মাদকমুক্ত সমাজ গঠন, শিক্ষিত বেকার যুবক-যুবতিদের কর্মসংস্থান, উন্নত স্বাস্থ্যসেবা ও শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করবো।