আশাশুনির প্রতাপনগর খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ সংস্কার


351 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনির প্রতাপনগর খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ সংস্কার
সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কৃষ্ণ ব্যানার্জী ::
সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নে খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ টি অবশেষে আটকানো সম্ভব হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত ২হাজার মানুষ একত্রিত হয়ে স্বেচ্ছা শ্রমের ভিত্তিতে বাঁধটি আটকানো সম্ভব হয়।

প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জানান, দীর্ঘদিন খোলপেটুয়া নদীর বেঁড়িবাধ জরাজীর্ণ ছিল। পানি উন্নয়ন বোর্ডকে বারবার বললেও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়নি। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে নদীর প্রবল জোয়ারের চাপে বাধ ভেঙে যায়। এতে প্রথমে হরিশখালি ও মাদারবাড়িয়া গ্রাম সহ ৪/৫টি গ্রাম প্লাবিত হয়। এরপর শুক্রবার তালতলা ও প্রতাপনগর নামে আরো দুটি গ্রাম প্লাবিত হয়। গত ৪ দিন যাবত সেখানে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে ভাঙনকবলিত বেড়িবাধ সংস্কারের কাজ করে মঙ্গলবার দুপুরে আটকানো সম্ভব হয়।

উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে প্রতাপনগরের হরিশখালি পয়েন্টে খোলপেটুয়া নদীর ২০০ ফুট বেড়িবাঁধ ভেঙে যায়। এর ফলে হরিশখালী, মাদারবাড়িয়া, তালতলা ও প্রতাপনগর গ্রামের নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হয়। শত শত মৎস্য ঘের, ঘর বাড়ি প্লাবিত হয়। গত শুক্রবার সকাল থেকে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে ভাঙনকবলিত বাধ সংস্কারের কাজ শুরু হলেও দুপুরের জোয়ারে তা আবারও তলিয়ে যায়। এরপর শনিবার সকাল থেকে সেখানে সহ¯্রাধিক লোক স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে ভাঙনকবলিত বেড়িবাধ সংস্কারের কাজ করে আজ আটকানো সম্ভব হয়।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিম, আওয়ামীলীনেতা সম সেলিম রেজা, রফিকুল ইসলাম মোল্যা,আনুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটন,আশাশুনি পানি উন্নয়ন বোর্ডের এসও সুনিল কুমার ঘটনাস্থল পরিদমর্শনে আসেন।