কপিলমুনিতে লেপ-তোষকের কারিগরদের বাড়ছে ব্যস্ততা


92 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কপিলমুনিতে লেপ-তোষকের কারিগরদের বাড়ছে ব্যস্ততা
নভেম্বর ১৮, ২০১৭ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

 

পলাশ কর্মকার, কপিলমুনি ::
এবছর শীতের আগম অনেকটা ধীরে বললেও চলে। তাই শীতের আমেজ আসতে না আসতেই লেপÑতোষক তৈরীতে ধুুম পড়েছে কপিলমুনিতে। গত কয়েক দিন ধরে ক্রেতাদের ভিড় জমতে শুরু করেছে লেপÑতোষকের দোকানে। কপিলমুনিসহ বিভিন্ন হাটবাজারে তুলা দিয়ে লেপ বানানোর মজুরির পাশাপাশি বেড়েছে তুলা ও কাপড়ের দাম। তথাপিও এ সব লেপ-তোষকের দোকানে দিন দিন বেড়েই চলছে ক্রেতাদের ভিড়। এ দিকে লেপÑতোষেকর পাশাপাশি শীতবস্ত্র বিক্রির দোকানে কেনাকাটাও বেড়েছে।
এলাকার বিভিন্ন হাটবাজার ঘুরে একাধিক লেপ-তোষক ও শীতবস্ত্র দোকান মালিকদের সাথে আলাপ কালে তারা জানান, গত বছরের তুলনায় এবার প্রত্যেক জিনিসের দাম বেশি। কথা হয় কপিলমুনির বিশিষ্ট লেপ-তোষক ব্যবসায়ী শেখ আয়ুব সিদ্দিকীর সাথে। তিনি বলেন, ‘শিমুল তুলা প্রতি কেজি গত বছর ছিল ২০০ টাকা এবার তা ৩০০ টাকা, সাধারন তুলার দাম প্রতি কেজিতে ৫-১০ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। সে ক্ষেত্রে শ্রেনী ভেদে প্রতি কেজি ৩০,৪০,৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। লেপের কাপড় গত বছরের তুলনায় প্রতি গজে ১০-১৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত বছর যে কাপড় গজ প্রতি বিক্রি হতো ৩৫ টাকা এবার তা ৪৫ টাকা, ৫৫ টাকার গজের কাপড় ৬৫-৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, এছাড়াও আরও বেশি দামের কাপড়ও আছে। যা ক্রেতাদের সামথ্যের উপর নির্ভরশীল’।
ব্যবসায়ীদের দাবী, লেপ-তোষক তৈরির মজুরিও বৃদ্ধি পেয়েছে। গত বছর প্রতিটি লেপ-তোষকের তৈরির মজুরি ছিল ১৮০-২০০ টাকা, এ বছর তা ২৫০-৩০০ টাকা। সব মিলে লেপ-তোষক ক্রেতাদের প্রতি পিচে ২০০-২৫০ টাকা বেশি দিতে হচ্ছে।