আশাশুনি সংবাদ ॥ ব্যাংক এশিয়ার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন


84 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ ব্যাংক এশিয়ার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন
ডিসেম্বর ৪, ২০১৭ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,কে হাসান ::
আশাশুনিতে ব্যাংক এশিয়ার ১৮ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। (সোমবার) সকালে একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক কার্যালয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের উপজেলা সমন্বয়কারী ও শাখা ব্যবস্থাপক কামাল হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুষমা সুলতানা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফাতেমা জোহরা ও এমপি ডাঃ রুহুল হকের প্রতিনিধি শম্ভুজিৎ মন্ডল। এসময় ব্যাংক এশিয়ার এআরও শাহ আলম, বেল্লাল হোসেন, আনোয়ারুল ইসলাম, রাশেদুল ও শাহনেওয়াজ উপস্থিত ছিলেন। ব্যাংকের মাধ্যমে অন লাইন ব্যাংকিং, ইউনিয়ন পরিষদে এজেন্টের মাধ্যমে পাসপোর্ট ফি, বিদ্যুৎ বিল আদায়, রেসিটেন্স, ক্ষুদ্র ঋণ, মোবাইল ব্যাংকিং, ডিপিএস, ডেবিট কার্ড, স্বপ্ন পেমেন্ট, বিধবা ও বয়স্ক ভাতা এবং ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের বেতনভাতা প্রদানসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।
##


আশাশুনিতে ৯৮ কৃষককে
বিনামূল্যে বীজ প্রদান

এস,কে হাসান ::
আশাশুনিতে ৯৮ জন কৃষকের মাঝে প্রদর্শনীর বীজ বিতরণ করা হয়েছে। (সোমবার) সকালে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চত্বরে বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
রাজস্ব খাতের অর্থায়নে রবি ২০১৭-১৮ মৌসুমে ফসলের উন্নত জাত, প্রযুক্তি প্রদর্শনী স্থাপন প্রতিগ্রহণ এর প্রদর্শনীর বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কৃষিবিদ রাজিবুল হাসান। বিভিন্ন ইউনিয়নের ৯৮ জন কৃষককে বারি-৯ ও বারি-১৭ জাতের সরিষা বীজ ২ কেজি করে প্রদান করা হয়। এসময় এসএপিপিও ও উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
##

সাংবাদিক আকাশের
চাচীর ইন্তেকাল

এস,কে হাসান ::
আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের হাজীডাঙ্গা গ্রামে মৃত নেহাল উদ্দিন সরদারের স্ত্রী ও আশাশুনি প্রেসক্লাবের সদস্য আকাশ হোসেনের চাচী রহিমা খাতুন ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি অইন্না ইলায়হি রাজেউন)। মৃতকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। রবিবার রাতে তিনি স্ট্রোকে আক্রান্ত হন এবং সেমাবার সকাল ১০.৩০ টার দিকে ইন্তেকাল করেন। এদিন বাদ আছর নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। জানাযায় ইমামতি করেন মাওঃ আঃ হান্নান। বক্তব্য রাখেন, মাওঃ আঃ অদুদ ও হাফেজ তরিকুল ইসলাম। স্থানীয় ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান, সাংবাদিকবৃন্দসহ এলাকার সর্বস্তরের মানুষ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
##

আশাশুনিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ ও নিম্মমানের
ধান বীজ বিক্রয়ের অভিযোগ

এস,কে হাসান ::
আশাশুনি উপজেলার বিভিন্ন বাজারে মেয়াদ উত্তীর্ণ ও নিম্মমানের ধানের বীজ বিক্রয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বীজ কিনে বহু কৃষক ভিজানোর পর কোলা না হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন।
উপজেলার কাদাকাটি ও বুধহাটা বাজারে ডিলার ও বীজ বিক্রেতারা ব্র্যাক ও বিএডিসির পলি প্যাকে প্যাকেটজাতকৃত ধানের বীজ বিক্রয় করছেন। হাই ব্রিড ও এসএল-৮ এইচ, সুপার হাইব্রিড জাতের এক কেজি করে প্যাকেটের ধান বীজ এখন এলাকার সকল ডিলার ও সার-কীটনাশক বিক্রেতাদের দোকানে পাওয়া যাচ্ছে। এসব দোকানে বিএডিসি সরবরাহকৃত প্যাকেটে উৎপাদন ও মেয়াদ উর্ত্তীর্ণের তারিখ দেখা যায় এক বছর আগে শেষ হয়েগেছে। এই তারিখের উপর কাগজের নতুন করে ছাপানো স্টিকার লাগিয়ে পুরনো প্যাকেটের ধানবীজ বিক্রয় করা হচ্ছে। এই মেয়াদোত্তীর্ণ বীজ ধান ক্রয় করে ধান ভিজিয়ে কোলা না হওয়ায় চাষীদের মাথায় হাত উঠে গেছে। কাদাকাটি গ্রামের কৃষক মৃত কেশব মন্ডলের পুত্র শিবপদ, পুলিন মন্ডলের পুত্র শংকর, তারক মন্ডলের পুত্র হরেকৃষ্ণ, খগেন্দ্র রায়ের পুত্র গাংগুলি, আরার গ্রামের মৃত ছবেদ মোড়লের পুত্র আয়ুবসহ এলাকার বহু চাষী জানান, তারা বিএডিসির উক্ত মেয়াদ উত্তীর্ণ বীজ ধান ক্রয় করে ভিজিয়ে কোলা তৈরি করতে পারেননি। আবার কেউ কেউ বীজ তলায় ধান ফেলেও ধান গজায়নি। ফলে তাদের হাজার হাজার টাকার ক্ষতি হওয়ার পাশাপাশি সময় নষ্ট হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন। এব্যাপারে ডিলার বিভাস দেবনাথ জানান, তিনি মেয়াদ উত্তীর্ণ ঐ প্যাকেট দুটি রেখে দিয়েছেন এবং ক্রেতাদের দেখাচ্ছেন যেন তারা ঐ বীজধান ক্রয় না করেন। কিন্তু বাজারে কমমূল্যে ঐ ধানবীজ সহ আরো কিছু কমমূল্যের বীজ ধান বিক্রয় করা হচ্ছে। ফলে চাষীরা ঠকছে। এব্যাপারে সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আতিয়ার রহমান জানান, বিএডিসি একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান এবং তাদের সরবরাহকৃত বীজ সকল প্রকার পরীক্ষা নীরিক্ষার পর বাজারজাত করা হয়। সেখানে মেয়াদোত্তীর্ণ বীজ সরবরাহ করার সুযোগ নেই। কৃষকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্টিকার লাগানো ধানবীজের প্যাকেট সংগ্রহ করেছি, পরীক্ষা নীরিক্ষার পর বলতে পারবো কৃষকদের ত্রুটি না বীজের ত্রুটি। বিএডিসি ডিডি লিয়াকত আলি ও এডি আনোয়ার হোসেনের সাথে কথা বললে তারা জানান, তাদের গত বছরে অব্যবহৃত ৫০ সহ¯্রাধিক প্যাকেট মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন সাপেক্ষে স্টিকার লাগিয়ে বীজধান বাজারজাত করা হয়েছে। এগুলো মেয়াদ উত্তীর্ণ নয়।
##

আশাশুনিতে শিক্ষীকার বিরুদ্ধে তথ্য
গোপন করে ছুটি ভোগের অভিযোগ

এস,কে হাসান ::
আশাশুনিতে এক শিক্ষিকার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ এনে এলাকাবাসি মহাপরিচালক, প্রাথমিক ও গনশিক্ষা অধিদপ্তর, ঢাকা বরাবর আবেদন করেছে।
অভিযোগে প্রকাশ, উপজেলার ৯ নং গোদাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মোছাঃ ছালমা খাতুন পাপড়ী বর্তমানে মাতৃত্বকালীন ছুটিতে আছেন। ছালমা খাতুন মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে ৬ মাসের স্থানে ৭ মাস ছুটি ভোগ করেছেন। তিনি ডাঃ রাবেয়া পারভীন এর তত্বাবধানে ছিলেন। কিন্তু তিনি ডাঃ শরিফুল ইসলাম এর কাছ থেকে মিথ্যা মেডিক্যাল সার্টিফিকেট ব্যবহার করে এক মাস ছুটি বেশী ভোগ করছেন। তার সন্তান ডেলিভারির তারিখ ছিল ২৬.০৫.২০১৭ কিন্ত সময় মত নরমাল ডেলিভারি না হওয়ায় তিনি ২৯.০৫.২০১৭ তারিখে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে সিজার করায়। অথচ তিনি ২৬.০৬.২০১৭ তারিখে ইস্যু করে ছুটি দাখিল করে। যার ফলে বিদ্যালয়ের কোমলমতি ছাত্র ছাত্রীদের ক্ষতি হচ্ছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাতক্ষীরা সদরের সহকারী শিক্ষা অফিসার নাজমুল হোসেন গত ৩০ নভেম্বর অভিযোগ তদন্ত করেছেন।