হাইকোর্টের রায় স্থগিতে নাইকোর আবেদনের শুনানি মুলতবি


55 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
হাইকোর্টের রায় স্থগিতে নাইকোর আবেদনের শুনানি মুলতবি
ডিসেম্বর ৭, ২০১৭ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলঅইন ডেস্ক ::
গ্যাস উত্তোলন ও সরবরাহে পেট্টোবাংলা ও বাপেক্সের সঙ্গে নাইকোর দুটি চুক্তি অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে শুনানি ১১ জানুয়ারি পর্যন্ত মুলতবি করেছেন আপিল বিভাগ।

বৃহস্পতিবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এর আগে ১৯ অক্টোবর ও ৯ নভেম্বর দুই দফা মুলতবি করা হয়েছিলো। নাইকোর পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ।

হাইকোর্ট গত ২৪ আগস্ট পেট্টোবাংলা ও বাপেক্সের সঙ্গে নাইকোর দুটি চুক্তি বাতিল করে রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ে বলা হয়, সুনামগঞ্জের টেংরাটিলায় নাইকোর গ্যাসক্ষেত্রে ২০০৫ সালের বিস্ফোরণের ঘটনায় ক্ষতিপূরণ এবং দুর্নীতির অভিযোগে নিম্নআদালতে বিচারাধীন দুটি মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নাইকোকে কোনো অর্থ পরিশোধ করা যাবে না। পাশাপাশি ওই দুই চুক্তির আওতায় নাইকো কানাডা ও নাইকো বাংলাদেশের সব সম্পত্তি এবং ৯ নম্বর ব্লকে থাকা নাইকোর সম্পত্তি রাষ্ট্রের অনুকূলে জব্দ করারও আদেশ দেওয়া হয়।

নাইকোর সঙ্গে করা ওই দুটি চুক্তির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) এর জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম গত বছরের মে মাসে জনস্বার্থে হাইকোর্টে একটি রিট দায়ের করেন। রিট আবেদনে বলা হয়, ২০০৩ ও ২০০৬ সালের নাইকোর সঙ্গে বাপেক্সও পেট্টোবাংলার চুক্তি যথাযথভাবে হয়নি। দুর্নীতির মাধ্যমে হয়েছে। এ ছাড়া ২০০৫ সালের ছাতকে যে বিস্ফোরণ ঘটেছে এর ক্ষতিপুরণ হিসেবে বাংলাদেশে থাকা নাইকোর সব সম্পত্তি জব্দেরও আবেদন করা হয়। পরে ওই রিটের ওপর শুনানি নিয়ে একই বছর রুল জারি করেন হাইকোর্ট। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৪ আগস্ট হাইকোর্ট রায় দেন। পরে ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে নাইকো।