আশাশুনি সংবাদ ॥ নিম্ন মানের ও অবৈধ বইয়ের রমরমা ব্যবসা


94 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ নিম্ন মানের ও অবৈধ বইয়ের রমরমা ব্যবসা
ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,কে হাসান ::
আশাশুনিতে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অবৈধ নোট বই ও চুক্তিবদ্ধ গাইড বই ধরিয়ে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার গোপন তৎপরতা আবারও শুরুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে অভিজ্ঞজন, বিদ্যানুরাগী, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।
বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও সচেতন মহলের সাথে কথা বলে জানাগেছে, উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বা নির্ধারিত কতিপয় শিক্ষক বেশ কয়েকটি প্রকাশনীর সাথে গোপনে চুক্তিবদ্ধ হয়ে মোটা টাকার বিনিময়ে শিক্ষার্থীদেরকে নিম্নমানের বা নির্ধারিত বই কিনতে বাধ্য করছে। শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের বলছেন, পরীক্ষায় ঐ বই থেকে প্রশ্ন করা হবে। শিক্ষকদের এমন আশ্বাসে বই কিনতে বাধ্য হচ্ছে শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা। শিক্ষার্থীরা শিক্ষকদের ফরমায়েস মানতে প্রথমে এক প্রকাশনীর বই কিনলেও পরবর্তীতে আবার অন্য প্রকাশনীর বই কিনতেও বাধ্য করে থাকেন এমন অভিযোগও রয়েছে। ফলে বছরে অনেক স্কুলের শিক্ষার্থীদের একাধিক প্রকাশনির বই কিনতে বাধ্য করা হয়ে থাকে। এ নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে এস এস সি পরীক্ষায় নিম্নমানের বইয়ের কারণে শিক্ষক-অবিভাবকদের মধ্যে বাক বিতন্ডাও হতে দেখা গেছে।
সরজমিন ঘুরে বিভিন্ন লাইব্রেরী, প্রতিষ্ঠান প্রধান, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানাগেছে, উপজেলার তুয়ারডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বিছট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ত্রয়োদশপল্লী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, বাইনতলা আরসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, গোয়ালডাঙ্গা ফকিরবাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মিত্র তেতুলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কাদাকাটি আরার মাধ্যমিক বিদ্যালয়, খরিয়াটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মাড়িয়ালা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, গুনাকরকাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ উপজেলার অধিকাংশ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আদিল প্রকাশনী, জুপিটর, পাঞ্জেরীসহ অন্য প্রকাশনীর বই বেশী বেশী করে পাওয়া যাচ্ছে। এসব স্কুলগুলোর সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে শিক্ষার্থীদের বই কিনতে বাধ্য করা হচ্ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক অভিভাবক জানান, শহর থেকে গ্রাম পর্যন্ত শিক্ষকরা বইয়ের ব্যবসায়ে জড়িয়ে পড়েছেন। এ ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। আমরা প্রতিবাদ করেও কোন কাজ হচ্ছে না। তারা উপজেলা প্রশাসনকেও ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করছেন। অভিভাবকরা আরো বলেন, শিক্ষকরা যদি শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে তাহলে আমাদের কিছুই করার থাকে না। এব্যাপারে তুয়ারডাঙ্গা, মিত্র তেঁতুলিয়া, কাদাকাটি আরার ও প্রধান শিক্ষক বা সহকারী প্রধান শিক্ষকদের সাথে কথা বললে তারা কোন প্রকাশনীর সাথে চুক্তিবদ্ধ হননি দাবী করে জানান, এবছর আশাশুনিতে সমিতির কার্যক্রম সচল না থাকায় বই ধরার ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। কোন প্রতিষ্ঠান চুক্তিবদ্ধ হলে সেটি তারা নিজ দায়িত্বে করবেন। শিক্ষাথীরা বই কিনলে বা প্রাইভেট শিক্ষকদের কথায় বই কিনলে সেটি তাদের নিজস্ব ব্যাপার। এব্যাপাওে উপজেলা শিক্ষা অফিসার বাকী বিল্লাহ জানান, গাইড বইয়ের ব্যাপাওে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পত্রের প্রেক্ষিতে সকল বিদ্যালয়কে গাইড বই ব্যবহার না করতে চুড়ান্ত নিষেধাজ্ঞা প্রদান করা হয়েছে। কেউ প্রশাসনের নাম ভাঙালে সেটি ¯্রফে ভাওতাবাজি মাত্র। ইতিমধ্যে আমরা প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে গইড বই ব্যবহার না করতে চিঠি করেছি।

##

আশাশুনিতে ইউপি সদস্যদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

এস,কে হাসান ::

আশাশুনিতে গ্রাম আদালত বিষয়ক ইউপি সদস্যদেও একদিনের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল ১০ টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এ প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।
ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও ইএনডিপি এর সহযোগিতায় আনুলিয়া ও প্রতাপনগর ইউনিয়নের ২২ জন ইউপি সদস্য ও মহিলা মেম্বারের অংশ গ্রহনে প্রশিক্ষণের আয়োজন করে, উপজেলা প্রশাসন আশাশুনি। স্থানীয় সরকার বিভাগ বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুষমা সুলতানা, প্রজেক্টেও জেলা সমন্বয়কারী এস এম রাজু জবেদ ও প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়কারী অক্ষয় কুমার সরকার। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ বাকী বিল্লাহ জানান,
##

আশাশুনি বাজারে গণ-শৌচাগার উদ্বোধন

এস,কে হাসান ::
আশাশুনি বাজারে জেলা পরিষদের অর্থায়নে গণ সৌচাগার উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল হাট-বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির আয়োজনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের সদস্য ও আশাশুনি উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মহিতুর রহমান।
হাট-বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সহ সভাপতি আব্দুল লতিফ ঢালী সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেনের পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, ইউপি সদস্য তারিকুল আওয়াল সেজ, কমিটির উপদেষ্টা ডাঃ নুরুল আমিন, নলীনি রঞ্জন, আশুতোষ রায়, দেব কুমার দে, সহ সভাপতি শিক্ষক ইয়াহিয়া ইকবাল, ঈমাম প্রভাষক বাকী বিল্লাহ, উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সিনিঃ সহ সভাপতি এমএম সাহেব আলী। সবশেষে ১ লক্ষ টাকা ব্যয়ে গণ-শৌচাগারের কাজ উদ্বোধন করেন জেলা পরিষদের সদস্য মহিতুর রহমান।
##

আশাশুনিতে ডিআরআরএর পরিকল্পনা সভা অনুুষ্ঠিত

এস,কে হাসান ::
আশাশুনিতে ডিআরআরএর উদ্যোগে পিআইএইচআরএস প্রকল্পের বিগত বছরের মূল্যায়ন ও আগামী বছরের পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল (সোমবার) দুপুওে আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রকল্পের জেলা ম্যানেজার আবুল হোসেনের পরিচালনায় আলোচনা করেন সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আঃ হান্নান, আশাশুনি প্রেসক্লাব সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম আহসান হাবিব, প্রভাষক মাসুদুর রহমান, সাবেক ইউপি সদস্য কল্যাণী সরকার প্রমুখ। সভায় বিগত বছরের প্রকল্পের কার্যক্রমের মূল্যায়ন এবং আগামী ২০১৯ সালের কর্ম পরিকল্পনা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
##

আশাশুনি যুবলীগের শোক

এস,কে হাসান ::
আশাশুনি উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিমের মেজ শ্যালক ব্যাংক কর্মকর্তা শামিমুর রহমানের অশাল মৃত্যুতে শোক জ্ঞাপন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আশাশুনি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সম সেলিম রেজা মিলন, সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদের সদস্য মহিতুর রহমান, যুবলীগ নেতা সাংবাদিক এমএম সাহেব আলী, আহসানুল্লাহ আছু, মোরশেদ মাহবুব লিপ্টন, মিজানুর রহমান মিজান, আয়ুব আলী, পরেশ অধিকারী, আনিছুর রহমান বাবলা, দীপন কুমার মন্ডল, হাফিজুর রহমান হাপি, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।
##

আশাশুনি শিক্ষকের উপর হামলার নিন্দা শিক্ষক পরিষদের

এস,কে হাসান ::
আশাশুনিতে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকাণে শিক্ষক রুহুল আমিনের উপর হামলা ও মারপিটের ঘঁনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন আশাশুনি উপজেলা শিক্ষন পরিষদ নেতৃবৃন্দ।
শিক্ষক পরিষদের আহবায়ক শিক্ষক আসিব ইকবাল, সদস্য প্রভাষক জাকির হোসেন ভুট্ট, মিজানুর রহমান, এসএম ইয়াহিয়া ইকবাল, নুরুল হুদা, মাছুদুর রহমান, আকতারুজ্জামান প্রিন্স, শিক্ষক আবুল কালম আজাদ (বুলবুল), নিরঞ্জন কুমার মন্ডল, আবুল কালাম আজাদ, আবুল কালাম, আ ন ম আলমগীর, মৈত্রেয় সুন্দর রায়, জহরুল ইসলাম, আবিয়ার রহমান, রফিকুল ইসলাম মজনু, পবিত্র কুমার, জাহিদুল ইসলাম সহ পরিষদের সদস্যবৃন্দ ঘঁনার তীব্র নিন্দা ও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবি জানিয়েছেন।

##