আজ থেকে শুরু হলো সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জ থেকে মধু আহরণ


849 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আজ থেকে শুরু হলো সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জ থেকে মধু আহরণ
এপ্রিল ১, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সুন্দরবন
Print Friendly, PDF & Email

এ বছর পশ্চিম সুন্দরবন থেকে ১ হাজার ৫০ কুইন্টাল মধু ও ২৬৫ কুইনন্টাল মোম আহরণ করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে

রনজিৎ বর্মন, মুন্সিগঞ্জ থেকে ফিরে ::
——————————————–
প্রতিবছর ১ এপ্রিল বনবিভাগ থেকে পাশ (অনুমতিপত্র) নিয়ে সুন্দরবনে মধু আহরণ করতে যান মৌয়ালরা। এবারও মৌয়ালরা ১ এপ্রিল মধু আহরণ করতে সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জে প্রবেশ করে আনুষ্ঠানিক ভাবে মধু আহরণ কার্যক্রম শুরু করেছেন।

সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ ) জি এম রফিক আহম্মেদ ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে জানান, চলতি বছর ৩০ জুন পর্যন্ত সুন্দরবন থেকে মধু আহরণ করা হবে। মৌয়ালিদের মাধ্যমে এ বছর পশ্চিম সুন্দরবন থেকে ১ হাজার ৫০ কুইন্টাল মধু ও ২৬৫ কুইনন্টাল মোম আহরণ করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

রবিবার সকালে সুন্দরবন পশ্চিম বনবিভাগ সাতক্ষীরা রেঞ্জের আয়োজনে ওয়াইল্ডটিম,বেডস ও জোয়ারের সহায়তায় বুড়িগোয়ালিনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্তরে মধু আহরণ উৎসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
মধু আহরন উৎসবের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মোঃ আমীর হোসাইন চেীধুরী।

অনুষ্ঠানে বক্তারা মৌ-মাছির ক্ষতি না করে মধুর চাক কাটা,মধুতে চিনি না মেশানো,সঠিক নিয়মে মধু সংগ্রহ,অভয়ারাণ্য এলাকায় প্রবেশ না করার বিষয়ে মৌয়ালদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এ ছাড়া বক্তারা যথাযথ কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বক্তব্যে সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকায় মধুর প্লান্ট স্থাপন,সুন্দরবন ভিত্তিক ইকো গাইড স্থাপন,অর্থনৈতিক জোন হিসাবে ঘোষণা,বনজীবিদের বিকল্প জীবিকায়নসৃষ্টি,পর্যটন এলাকা ঘোষণাসহ অন্যান্য দাবী উত্থাপন করেন।

অপরদিকে অনুষ্ঠানে মৌয়ালরা তাদের বক্তব্যে সুন্দরবনের কোন কোন এলাকায় মধু আহরণ করবেন এ বিষয়ে বনবিভাগের কাছে সুনিদিষ্ট গাইডলাইন চান।

সুন্দরবন পশ্চিম বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বশিরুল আলম মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক জি,এম রফিক আহম্মেদ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শ্যামনগর ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম মহসীন উল মুলক,সিএমসি সভাপতি চেয়ারম্যান ভবতোষ কুমার মন্ডল,চেয়ারম্যান মাসুদুল আলম,ওয়াইল্ডটিম খুলনার প্রোগ্রাম অফিসার রুবাইয়েত হাসান,সাংবাদিক কল্যাণ ব্যানার্জী,বনজীবি ইকবাল হোসেন, বেডসের পরিচালক মাকসুদুর রহমান,জোয়ারের নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রহমান আকাশ,মধু ব্যবসায়ী এস এম মঈনুল আনোয়ার প্রমুখ।

সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ওয়াইল্ডটিম সাতক্ষীরা রেঞ্জের কর্মকর্তা মোঃ আবু জাফর। আলোচনা শেষে ৪ জন মৌয়ালী আদম আলী,মোক্তার গাজী,ইকবাল হোসেন মন্টু ও ইউনুচ শেখের হাতে আগুন নিভানো পাম্প ও ৩ জন মৌয়াল সামাদ শেখ,আদম আলী গাজী ও হাসান আলী গাজীর হাতে অতিথিবৃন্দ পাশের কপি তুলে দেন।

পরে অতিথিরা সুন্দরবনের ভিতর কলাগাছিয়া নামক স্থানে গিয়ে মধুর চাক কেটে মধু আহরণ উৎসবের উদ্বোধন করেন।
###