মারধর ও বাড়ি ভাংচুর করে খাস জমি থেকেও উচ্ছেদ আশাশুনির ভিডিপি সদস্য মারুফা খাতুন


215 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মারধর ও বাড়ি ভাংচুর করে খাস জমি থেকেও উচ্ছেদ আশাশুনির ভিডিপি সদস্য মারুফা খাতুন
এপ্রিল ২৬, ২০১৮ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

 

বিশেষ প্রতিনিধি ::
জমি কিনতে গিয়ে বিক্রেতার কাছে প্রতারনার শিকার আশাশুনির আনসার ভিডিপি সদস্য গৃহবধূ মারুফা খাতুন সরকারি খাস জমিতেও টিকতে পারছেন না। দখলবাজরা তাকে মারধর করে তার বাড়িঘর ভেঙ্গেচুরে দিয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসা নিয়ে মারুফা এখন নিজ বাড়িঘর ফিরে পেতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

গত রোববার প্রকাশ্যে একদল লোক এসে তার বাড়ি ঘর ভেঙ্গে সর্বস্ব লুটপাট করে নিয়ে গেছে। বাধা দেওয়ায় তারা মারুফাকে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় আঘাত করেছে। এমনকি তার তিন বছরের শিশুকেও ছুড়ে ফেলে দিয়েছে তারা। মারুফা এ বিষয়ে থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নিতে অস্বীকৃতি জানায়। বৃহস্পতিবার তিনি সাতক্ষীরা আদালতে একটি মামলা করেছেন। এ মামলায় আসামি করা হয়েছে স্থানীয় সেলিম রেজা সেলিম , তার দুই ভাই শাহিন সরদার ও ডেভিড সরদার, হাসেম ঢালি, শওকত আলি, মোস্তফা মোড়ল, মো. হাশেম আলি, মো. আল আমিন, আইয়ুব আলি , আফসার আলিসহ ১০ জনকে। আদালত এ ঘটনায় সরাসরি এফআইআর নেওয়ার জন্য আশাশুনি থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন। গৃহবধূ মারুফা খাতুন আনসার ভিডিপি সদস্য। তিনি জানান এর আগেও গত ফেব্র“য়ারি মাসে সেলিম রেজাসহ কয়েকজন তাকে মারধর করে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করে। সে মামলা এখনও চলছে।
মারুফা জানান তিনি কয়েক বছর আগে হাসেম ঢালি ও হযরত ঢালির কাছ থেকে সাড়ে তিন লাখ টাকায় আশাশুনি মৌজায় ৭ শতক জমি কেনেন। কিন্তু হাসেম ও হযরত সে জমির দলিল করে দিলেও তাদের দখল দেয়নি। পরে তিনি জানতে পারেন জমির বিক্রেতা একই জমি দুইবার বিক্রি করে তার সাথে প্রতারনা করেছেন। এর পর থেকে তিনি টাকা ফেরতও দিচ্ছেন না। এমনকি জমিও দিচ্ছেন না। মারুফা বলেন তার জমির পাশেই রয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জমি। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করে কিছু খাস জমিতে তিনি বসবাস শুরু করেন। কয়েক বছর ধরে সেখানে তিনি মাটি তুলে গাছপালা লাগিয়ে সরকারের ওই জমি ব্যবহার করে আসছেন।

অভিযোগ করে তিনি বলেন সেলিম রেজা সেলিম ও তার দুই ভাই এলাকার কিছু লোককে সাথে নিয়ে গত রোববার তার বাড়িঘর ভাংচুর করে ও মারধর করে তাকে সপরিবারে উচ্ছেদ করে দিয়েছে। এরপর থেকে অব্যাহতভাবে তার পরিবারকে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে। মারুফা এ ব্যাপারে পুলিশের কোনো সহযোগিতা না পেয়ে আদালতে মামলা করেছেন। তিনি বাড়ি ফিরে পেতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।
জেলা ভূমিহীন সমিতির সাধারন সম্পাদক আলি নুর খান বাবুল বলেন খাসজমি থেকে মারুফাদের উচ্ছেদ করা অন্যায় । তিনি এর বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামবেন বলে হুশিয়ারি দেন।