মন্ত্রী-সচিবদের মোবাইল খরচের নির্ধারিত সীমা থাকছে না


201 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মন্ত্রী-সচিবদের মোবাইল খরচের নির্ধারিত সীমা থাকছে না
মে ২১, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক :
সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: ফোকাস বাংলা

মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী, সচিব ও ভারপ্রাপ্ত সচিবদের মোবাইল ফোন ব্যবহারের নির্ধারিত সীমা রাখা হচ্ছে না। এক্ষেত্রে তারা যতো টাকা খরচ করবেন সব টাকা দেবে সরকার। এছাড়া তারা মোবাইল ফোন কিনতে সরকারিভাবে ৭৫ হাজার টাকা করে পাবেন। এতোদিন তারা এ বাবদ ১৫ হাজার টাকা পেতেন।

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এসব বিধান যুক্ত করে ‘সরকারি টেলিফোন, সেলুলার, ফ্যাক্স ও ইন্টারনেট নীতিমালা-২০১৮’ এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, এ ধরনের একটি নীতিমালা আগে থেকেই ছিল। ২০০৪ সালে তা সমন্বিতভাবে করা হয়। ২০১৭ সালে নতুন একটি খসড়া তৈরি হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সেটাই এখন চূড়ান্ত করা হলো। তবে মন্ত্রিসভায় কয়েকটি অনুশাসন দিয়েছে। এতে উচ্চ আদালতের বিচারপতিদের বিষয়টিও এর অন্তর্ভুক্ত করার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রাচার প্রধানকে রোমিং সুবিধাসহ এ সুবিধার আওতাভুক্ত করার অনুশাসন দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আগের নীতিমালায় মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও সচিবদের মোবাইল কেনার জন্য ১৫ হাজার টাকা বরাদ্দ ছিল। বর্তমান বাজারদরের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এখন সেটা ৭৫ হাজার টাকা করা হয়েছে। যুগ্ম সচিব, অতিরিক্ত সচিবসহ যেসব কর্মকর্তা সার্বক্ষণিকভাবে মোবাইলের সুবিধা পান না, তাদের মোবাইল ফোন ব্যবহার ভাতা হিসেবে মাসে ১৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। এতো দিন তারা ৬০০ টাকা করে পেতেন।

সভায় হাউজিং অ্যান্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট আইনের খসড়াও অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আইনটি ১৯৭৭ সালে অধ্যাদেশ আকারে করা হয়েছিল।