বিচার বহির্ভূত হত্যা নয়, এনকাউন্টার হচ্ছে : কাদের


420 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বিচার বহির্ভূত হত্যা নয়, এনকাউন্টার হচ্ছে : কাদের
মে ২৪, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে সাত দিনে ৫২ জনের মৃত্যুর ঘটনাকে ‘এনকাউন্টার’ বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, মাদককারবারীরা অস্ত্র নিয়ে হামলা করছে। পুলিশের পাল্টা জবাবে তাদের মৃত্যু হচ্ছে। একে বিচার বহির্ভূত হত্যা বলা যায় না। আওয়ামী লীগ বিচার বহির্ভূত হত্যায় বিশ্বাস করে না।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউয়ে সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম পরিদর্শন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। মাদকবিরোধী অভিযানে আবদুর রহমান বদি এমপিকে না ধরার সমালোচনার জবাবে বলেছেন, তাকে ধরতে হলে প্রমাণ লাগবে।

মাদকবিরোধী অভিযানে নিহতের স্বজনদের অভিযোগ র‌্যাব-পুলিশ তাদের ধরে নিয়ে হত্যা করেছে। মানবাধিকার সংগঠনগুলোও একই অভিযোগ করেছে। তবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দাবি, হামলার জবাবে ছোড়া গুলিতে তাদের মৃত্যু হচ্ছে। নিতহদের সবাই মাদক ব্যবসায়ী।

পুলিশের এ দাবিকে সমর্থন করে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পুলিশ যাদের ধরতে যাচ্ছে, তারাও অস্ত্র নিয়ে মোকাবিলা করছে। তাহলে পুলিশ কি গান গাইবে? হামলা মোকাবেলা করবে না? এনকাউন্টারকে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বলা যাবে না।

বিএনপির অভিযোগ, নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ঘটাচ্ছে সরকার। এর জবাবে কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড সমর্থন করেন না। বিএনপির মাদক বিরোধী অভিযান নিয়ে কথা বলার অধিবার নেই বলে দাবি করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সাড়ে নয় বছরের শাসনামলে বিএনপি একবারও মাদকের বিপক্ষে বলেনি। বিএনপির অনেকেই মাদক ব্যবসায় জড়িত। তাদেরও ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দেন ওবাদুল কাদের।

সরকারে শরিক জাতীয় পার্টিও মাদক বিরোধী অভিযান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। বিএনপির মতো তাদেরও অভিযোগ, আওয়ামী লীগের এমপি বদি মাদকের হোতা। গত বুধবার জাপার চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ বলেন, ‘মাদক সম্রাট সংসদে রয়েছেন’।

এ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রমাণ ছাড়া কাউকে ধরা যায় না, একজন এমপিকে চট করে ধরা যায় না। বদি অপরাধী প্রমাণ হলে অবশ্যই শাস্তি হবে। কেবল বদি নয়, মাদকের সঙ্গে সরকারের প্রভাবশালী কেউ জড়িত থাকলেও তারও শাস্তি হবে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে জরুরি সহায়তা হেল্প নম্বর ‘৯৯৯’ এর লিফলেট ও স্টিকার বিতরণ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।