টস কারণ হতে পারে বাংলাদেশ-উইন্ডিজ ম্যাচে


83 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
টস কারণ হতে পারে বাংলাদেশ-উইন্ডিজ ম্যাচে
জুলাই ২২, ২০১৮ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা দীর্ঘ নয় বছর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গেলেন। সুখ-দুঃখের স্মৃতি বিজড়ির ক্যারিবিও সফরে গেলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। ওই সিরিজেই প্রথম বাংলাদেশের ওয়ানডে এবং টেস্টের অধিনায়কের দায়িত্ব পান মাশরাফি। কিন্তু ইনজুরি নিয়ে দেশে ফেরেন ম্যাশ। ২০০৯ সালের সেই ইনজুরি মাশরাফির ক্যারিয়ার থেকে অনেক কিছু কেড়ে নিয়েছে। দেশের মাটিতে ২০১১ সালের বিশ্বকাপ খেলতে পারেননি মাশরাফি। সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে আবার ফিরেছেন মাশরাফি।

সেবার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ধবলধোলাই করেছিল বাংলাদেশ। আর এবার টেস্ট সিরিজে ধবলধোলাই হয়ে বাংলাদেশ আছে মানসিক বিপর্যয়ের মধ্যে। তবে বাংলাদেশের জন্য আশার কথা হলো মাশরাফি বিন মতুর্জা ওয়েস্ট ইন্ডিজে বিপক্ষে দলের নেতৃত্ব দেওয়া। বাংলাদেশকে দলকে কেবল তিনিই উজ্জীবিত করতে পারেন। এমনকি এই সিরিজের মধ্য দিয়েই বাংলাদেশের ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু করতে যাচ্ছে। বিশ্বকাপেরও যে বাকি মাত্র এক বছর।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বাংলাদেশের বিপক্ষে শুরু করবে নতুন এক দল নিয়ে। ক্রিস গেইল, হোল্ডার, ইভান লুইস এবং রাসেলরাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের পুরনো ক্রিকেটার। তারা বিশ্বকাপকে সামনে রেখে শাই হোপ, হেটমায়ার, কিরণ পাওয়েলদের নিয়ে শুরু করতে যাচ্ছে। এছাড়া বোলিং আক্রমণে থাকবেন কিমো পাউয়েল, আলজারি জোসেপরা।

তবে বাংলাদেশ দল মাঠে নামছে বেশ অভিজ্ঞ এক দল নিয়েই। তামিম, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহদের নিয়ে অভিজ্ঞ ব্যাটিং বাংলাদেশের। বোলিং লাইনআপে অধিনায়ক মাশরাফির সঙ্গে রুবেল-মোস্তাফিজদের ভালো করার সুযোগ আছে। স্পিনে সাকিবের সঙ্গে মেহেদি মিরাজ। তবে ম্যাচের আগে প্রশ্ন সাব্বির নাকি মোসাদ্দেক খেলবেন। শেষের দিকে সাব্বিরকে রেখে মোসাদ্দেককে বাংলাদেশ বসিয়ে রাখবে। নাকি সাব্বিরকে বসিয়ে রেখে দুইয়ে আনামুলকে ব্যাটিং করাবে সেটাও থাকবে দেখার বিষয়ে।

তবে বাংলাদেশের জন্য চিন্তার বিষয় থাকবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কন্ডিশন। ওয়ানডে ম্যাচে কন্ডিশনের কাছে ধুকেছে বাংলাদেশ। গায়নায় বাংলাদেশ কন্ডিশন নিয়ে চিন্তায় থাকবে। কারণ গায়নার প্রভিডেন্স স্টেডিয়ামে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হয়েছে ২০১৭ সালে। এর মধ্যে অবশ্য সিপিএল হয়েছে। প্রথম শ্রেণীর কিছু ম্যাচ খেলানো হয়েছে গায়ানায়। তাতে উইকেট এবং আগের ম্যাচগুলোর ফল প্রথম ব্যাট করা দলকে বিপদের আভাস দেয়।

বাংলাদেশের জন্য চিন্তার বিষয় হয়ে থাকবে টেস্ট ব্যর্থতা। তবে বাংলাদেশ তাদের সর্বশেষ পাঁচ ওয়ানডের তিনটিতে জিতেছে। ওই তিনটি জয়ই অবশ্য পরপর। অন্যদি ওয়েস্ট ইন্ডিজও শেষ পাঁচ ম্যাচে তিন জয় পেয়েছে। তার মধ্যে প্রথম ম্যাচে হারের পর দুটিতে জয়। এরপর আবার হারের পর শেষ ম্যাচে জয় পেয়েছে হোল্ডারের দল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ-বাংলাদেশ ম্যাচে আলোয় থাকবেন ক্রিস গেইল এবং মুশফিক। দুই দেশের মুখোমুখি লড়াইয়ে তারা দুজনই কমপক্ষে ৫০০ রান করেছেন। আর বোলিংয়ে জেসন হোল্ডার এবং রুবেল হোসেন। রুবেলর সর্বশেষ টেস্ট সিরিজ ভালো না গেলেও বাংলাদেশের সর্বশেষ এক বছরে বেশি ১৪ উইকেট তার দখলে। অন্যদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেরা বোলার অধিনায়ক হোল্ডার। তিনি শেষ ১২ মাসে ২২ উইকেট দখল করেছেন।

বাংলাদেশের সম্ভব্য একাদশ: তামিম ইকবাল, লিটন দাস, আনামুল হক, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদুল্লাহ, মোসাদ্দেক, মেহেদী মিরাজ, মাশরাফি মর্তুজা (অধিনায়ক), রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সম্ভব্য একাদশ: ক্রিস গেইল, ইভান লু্ইস, শাই হোপ, কাউরান পাওয়েল, সিমরন হেটমায়ার, জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক), রোভম্যান পাউয়েল, আন্দ্রে রাসেল, দেবেন্দ্র বিশু, কেমো পাউয়েল, আলজারি জোসেপ।