রাজধানীর বসুন্ধরায় ব্লক রেইড


128 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
রাজধানীর বসুন্ধরায় ব্লক রেইড
আগস্ট ৯, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
রাজধানীর বসুন্ধরা, কালাচাঁদপুর ও নদ্দা এলাকায় বুধবার রাতে ব্লক রেইড দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। এতে অংশ নেন সহস্রাধিক পুলিশ সদস্য। এছাড়া ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ও থানা পুলিশের সদস্যরা সেখানে ছিলেন।

ব্লক রেইডে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) কৃষ্ণপদ রায়, অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) আবদুল বাতেন, যুগ্ম কমিশনার (ক্রাইম) নাজমুল ইসলাম, গুলশানের ডিসি মোস্তাক আহমেদসহ পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। রাত সাড়ে ৮টায় পুলিশের এই অভিযান শুরু হয়।

রাত ১২টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কাউকে আটক করা হয়নি। এছাড়া নিষিদ্ধ কোনো জিনিসপত্রও পাওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, রাতে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার গেট থেকে সশস্ত্র অবস্থায় কয়েকশ’ পুলিশ সদস্য ব্লক রেইডের কার্যক্রম শুরু করেন। প্রতিটি বাড়ির সামনে গিয়ে সেখানে কারা থাকেন তাদের পরিচয় জানতে চাওয়া হয়। অপরিচিত কাউকে দেখলে পুলিশকে অবহিত করতে বলা হয়েছে। এছাড়া রাস্তার পথচারীকে জিজ্ঞাসাবাদ এবং মেসে ও যানবাহনে তল্লাশি চালানো হয়।

পুলিশের গুলশান বিভাগের সহকারী কমিশনার রফিকুল ইসলাম  বলেন, নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবেই ব্লক রেইড চালানো হয়।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে গত সোমবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত রাজধানীর বসুন্ধরা এলাকায় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ও ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ এ সময় কয়েকশ’ কাঁদানে গ্যাসের শেল ও রাবার বুলেট ছোড়ে। শিক্ষার্থীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে হামলা করে। তারা দীর্ঘ সময় ওই এলাকার যান চলাচল বন্ধ করে রাখে। দিনভর সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছিলেন। স্থানীয়রা জানায়, সংঘর্ষে পুলিশের সঙ্গে যারা জড়িয়েছিল তাদের মধ্যে অনেকে বসুন্ধরা এলাকার পাশে বিভিন্ন বস্তির বাসিন্দা।

এমন বাস্তবতায় বুধবার রাতে হঠাৎ ব্লক রেইড শুরু করে পুলিশ। এর আগে বিভিন্ন সময় জঙ্গিবিরোধী কার্যক্রমের অংশ হিসেবে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় প্রায় নিয়মিত ব্লক রেইড চালাত পুলিশ।

এদিকে পুলিশের ওপর হামলা ও ভাংচুরের পৃথক দুই মামলায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২২ ছাত্রের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। তারা ইস্ট ওয়েস্ট, নর্থ সাউথ, সাউথইস্ট ও ব্র্যাকের ছাত্র।

পুলিশের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানান, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে ঘিরে কয়েক দিন বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় যারা জড়ো হয়েছিল তাদের মধ্যে হিযবুত তাহরীরসহ বিভিন্ন উগ্রপন্থি সংগঠন ও অন্য আরও স্বার্থান্বেষী মহল জড়িত রয়েছে। তারা ওই এলাকায় গোপনে অস্ত্রশস্ত্র ও হাতবোমা জড়ো করছে বলে গোয়েন্দারা জানান। তাই পুলিশ ব্লক রেইড দেওয়ার উদ্যোগ নেয়। তবে রেইড দেওয়ার আগেই তার তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলে আসে।