খুলনায় “স্থানীয় সরকার শক্তিশালীকরণ : নাগরিক অংশগ্রহন ও সামাজিক দায়বদ্ধতার উন্নয়ন” শীর্ষক কর্মশালা


284 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
খুলনায় “স্থানীয় সরকার শক্তিশালীকরণ : নাগরিক অংশগ্রহন ও সামাজিক দায়বদ্ধতার উন্নয়ন” শীর্ষক কর্মশালা
সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৮ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

“আমেরিকান সরকারের আন্তজার্তিক উন্নয়ন সংস্থা (ইউএসএআইডি) এর ফুড ফর পিস (টাইটেল-২) খাদ্য সহায়তা কার্যক্রমের অর্থায়নে ‘নবযাত্রা’ একটি পাঁচ বছর মেয়াদী প্রকল্প; যা ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে শুরু হয়েছে এবং ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে শেষ হবে। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এর নেতৃত্বে নবযাত্রা প্রকল্প অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম, উইনরক ইন্টারন্যাশনাল এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পটি বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিম উপকূলীয় খুলনা জেলার দাকোপ ও কয়রা এবং সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ ও শ্যামনগর উপজেলার ৮,৫৬,১১৬ জন উপকারভোগীর জন্য বাস্তবায়িত হচ্ছে।

নবযাত্রা প্রকল্পের সুশাসন ও সামাজিক দায়বদ্ধতা কম্পোনেন্টের আয়োজনে খুলনার সিএসএস আভা সেন্টারে “স্থানীয় সরকার শক্তিশালীকরণ: নাগরিক অংশগ্রহন ও সামাজিক দায়বদ্ধতার উন্নয়ন” শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হোসেন আলী খন্দকার। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন প্রকল্পের টেকনিক্যাল প্রোগ্রাম ডিরেক্টর মোহাম্মদ নূরুল আলম রাজু। কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. প্রণব কুমার পান্ডে এবং অতিথি বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) এর সিনিয়র রিসার্স ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান। ২০১৭ সালে নবযাত্রা প্রকল্প “স্থানীয় সরকার শক্তিশালীকরণ: নাগরিক অংশগ্রহন ও সামাজিক দায়বদ্ধতার উন্নয়ন” শীর্ষক একটি গবেষণা অধ্যাপক ড. প্রণব কুমার পান্ডের নেতৃত্বে পরিচালিত করেছিলো। খুলনা জেলার কয়রা ও দাকোপ উপজেলা এবং সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ ও শ্যামনগর উপজেলায় পরিচালিত উক্ত গবেষণা প্রতিবেদনে ইউনিয়ন পরিষদের সামাজিক দায়বদ্ধতা, স্থানীয় পর্যায়ে সামাজিক দায়বদ্ধতা নিশ্চিতকরণে গণফোরাম বা নাগরিক ফোরামের ভূমিকা, সামাজিক দায়বদ্ধতার নিরিখে ইউনিয়ন পরিষদের স্থায়ী কমিটিগুলোর ক্রিয়াশীলতার অবস্থা, সামাজিক দায়বদ্ধতার ক্ষেত্রে গ্রাম উন্নয়ন কমিটির ভূমিকা, স্থানীয় সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের সামাজিক দায়বদ্ধতার অবস্থা ও নাগরিক সরকারের অংশগ্রহণে কেন্দ্রীয় সরকারের দৃষ্টিভঙ্গী বিষয়ে নানাবিধ তথ্য উপাত্তের মাধ্যমে বর্তমান অবস্থার উপর আলোকপাত করার পাশাপাশি বিদ্যমান অবস্থার সামগ্রিক উন্নয়নে করণীয় বিষয়সমূহ তুলে ধরা। গবেষণায় দেখা যায়, ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত সদস্য ছাড়া, স্থায়ী কমিটির ৮০% সদস্য তারা যে কমিটির সদস্য সেগুলোর নাম বলতে পারে না। অপর্যাপ্ত জনবল তৃণমূল পর্যায়ে সরকারের কৃষি সেবা প্রদানের অপ্রতুলতার মূল কারন। স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের সিদ্ধান্ত গ্রহনকারীরা নি¤œমূখী দায়বদ্ধতার চেয়ে উর্দ্ধমূখী দায়বদ্ধতার দিকে বেশি মনোযোগ দেয়। গবেষনায় আরো দেখা যায়, প্রশাসনিক সহায়তা এবং নির্দেশনার অপ্রতুলতা, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের অনিচ্ছা, বিভিন্ন নীতিমালার সামঞ্জস্যহীনতার কারনে ইউনিয়ন পরিষদের স্থায়ী কমিটিগুলো দূর্বল রোল প্লে করছে ।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খুলনার বিভাগীয় কমিশনার বলেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে অব্যহত রাখার জন্য ইউনিয়ন পরিষদ সমূহকে আরো বেশি দায়বদ্ধতার সাথে কাজ করতে হবে। ইউনিয়ন পরিষদ হচ্ছে রাষ্ট্রের সবচেয়ে প্রাচীন এবং কার্যকরী স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান। এ ক্ষেত্রে নবযাত্রাকে অভিনন্দন জানাই এবং নবযাত্রা প্রকল্পের মাধ্যমে প্রকল্প এলাকার প্রান্তিক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নে নিরলস কাজ করছে।

বিশেষ অতিথি খুলনার স্থানীয় সরকার এর পরিচালক বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের সামাজিক দায়বদ্ধতা গবেষণায় প্রাপ্ত বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত উপস্থাপন করেছে তা যথেষ্ট যৌতিক মনে হয়েছে এবং এগুলোকে গুরুত্ব দিয়ে এ বিষয়ে কাজ করলে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান আরো শক্তিশালী হবে।

সভাপতির বক্তৃতায় প্রকল্পের টেকনিক্যাল প্রোগ্রাম ডিরেক্টর মোহাম্মদ নুরুল আলম বলেন, নবযাত্রা প্রকল্প জনঅংশগ্রহনের মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের পাশাপাশি স্থানীয় সরকার ব্যবস্থার উন্নয়নে সরকারের সাথে কাজ করে চলেছে।

কর্মশালায় আরো উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা ও খুলনা জেলার স্থানীয় সরকার এর উপ-পরিচালকদ্বয়, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালকগন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী, ডিআরআরও, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানগন, পৌরসভার কাউনসিলর, উপজেলা নির্বাহী অফিসারগন, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়াম্যানগন ও সদস্যগন, বেসরকারী উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালকবৃন্দ, সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) প্রতিনিধিবৃন্দ, উন্নয়নকর্মী, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, গ্রাম উন্নয়ন কমিটির সদস্যগণ, প্রকল্পের কর্মকর্তাগণ এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীবৃন্দ।

সমগ্র অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন নবযাত্রা প্রকল্পের গুড গভর্নেন্স এন্ড সোস্যাল একাউন্ট্যাবিলিটি ম্যানেজার নির্মল সরকার।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি