সাতক্ষীরার শ্যামনগরে প্রতিমা বিসর্জন মঞ্চে জায়গা না পেয়ে গুলিবর্ষণ : থানায় জিডি


1045 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার শ্যামনগরে প্রতিমা বিসর্জন মঞ্চে জায়গা না পেয়ে গুলিবর্ষণ : থানায় জিডি
অক্টোবর ২০, ২০১৮ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

 

* দুই এমপি প্রার্থীর শক্তি প্রদর্শন

 

মনজুর কাদীর :

সাতক্ষীরার শ্যামনগরের দুর্গাবাটি এলাকায় খোলপেটুয়া নদীতে প্রতিমা বিসর্জন মঞ্চে জায়গা না পাওয়াকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের এমপি পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী দুই গ্রুপের মধ্যে শক্তি প্রদর্শনের ঘটনা ঘটেছে। এদের মধ্যে এক বাহিনী বন্দুক উঁচু করে গুলিবর্ষনের ভাব দেখিয়েছে। প্রতিপক্ষ গ্রুপের সদস্যরা ফাঁকা গুলি করে শক্তি প্রদর্শন করেছে বলে জানাগেছে। গুলি বর্ষনের এ ঘটনার পর ওই এলাকার সাধারণ মানুষের মনে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। বিপদ এড়াতে তড়িঘড়ি করে মঞ্চে বসে থানা স্থানীয় সংসদ সদস্য এস এম জগলুল হায়দারকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে।

এদিকে, শুক্রবার রাতেই গুলি বর্ষনের এ ঘটনা উল্লেখ করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা , মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অসীম কুমার মৃধা বাদী হয়ে শ্যামনগর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের বিষয়টি সাধারণ ডায়েরী হিসেবে থানায় রেকর্ড হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার বিজয়া দশমীর দিন বিকালে খোলপেটুয়া নদীতে প্রতিমা বিসর্জনের জন্য বুড়িগোয়ালিনীর দুর্গাবাটি এলাকায় তৈরী করা হয় প্রতিমা বিসর্জন মঞ্চ। সেখানে সব ধর্মের হাজার হাজার দর্শণার্থী জড়ো হয়। বিপুল সংখ্যক দর্শণার্থী নৌকাযোগে শতাধিক দুর্গাপ্রতিমা নিয়ে জড়ো হয়েছিল নদীর ওই ঘাটে। প্রতিমা বিসর্জন উপভোগ করার জন্য বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদ সেখানে মঞ্চটি তৈরি করে দেয়।

মঞ্চে প্রধান অতিথির আসন গ্রহণ করেন সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য এস এম জগলুল হায়দার। এ সময় আগামি সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী, গাবুরা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক শফিউল আজম লেনিন মঞ্চে জায়গা না পেয়ে ক্ষুব্ধ হন। তার ট্রলার থেকে জুতা প্রদর্শনের মতো অসম্মানজনক ঘটনা ঘটে। এর পরই তার ট্রলার থেকে বন্দুকের গুলির শব্দ পাওয়া যায়। তবে প্রতিমা বিসর্জন কোনোভাবেই বিঘিœত হয়নি বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসি।

বুড়িগোয়ালিনী ইউপি চেয়ারম্যান ভবতোষ মন্ডল বলেন,‘ নদীতে ভাসমান একটি ট্রলার থেকে গুলির শব্দ পাওয়া যায়। এর বেশি কিছু আমি জানিনা। এ ঘটনার পর আতংক ছড়িয়ে পড়ায় অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয় বলে জানান তিনি। শুক্রবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে শ্যামনগরের বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের পশ্চিম দুর্গাবাটিতে। এ সময় হাজার হাজার নর-নারীর উপস্থিতিতে খোলপেটুয়া নদীতে প্রতিমা বিসর্জনের কাজ চলছিল’।

শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম আতাউল হক দোলন বলেন, মঞ্চ থেকে এমপি সমর্থক লোকজন বন্দুক প্রদর্শন করে। এসময় শফিউল আজম লেনিন তার নৌকার বহর থেকে নিজস্ব বন্দুক দিয়ে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এ ঘটনার পর দর্শণার্থীদের মধ্যে আতংকের সৃষ্টি হয়। তবে কেউ হতাহত হয়নি।

শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অসীম কুমার মৃধা বলেন, বিনা কারণে শফিউল আযম লেনিন ও তার লোকজন ট্রলার থেকে ফাঁকা গুলি বর্ষণ করেছে। এ ঘটনা উল্লেখ করে আমি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। তবে অভিযোগটি থানায় রেকর্ড হয়েছে কিনা জানিনা।
এ বিষয়ে শফিউল আজম লেনিন বলেন ‘এটা মিথ্যা প্রচার। আমার ট্রলার থেকে গুলির কোনো ঘটনা ঘটেনি। জুতা দেখানোর ঘটনাও মিথ্যা’।

ঘটনা সম্পর্কে স্থানীয় এমপি জগলুল হায়দার বলেন, আমি মঞ্চে বক্তব্য দেওয়ার সময় হঠাৎ গুলির শব্দ শুনি। এসময় মঞ্চে উপস্থিত লোকজন আমাকে নিরাপত্তার কারণে অন্যত্র সরিয়ে নেয়।

শ্যামনগর থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে জানান, এ ব্যাপারে শুক্রবার রাতে মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান অসীম কুমার মৃধা একটি অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগটি থানায় সাধারণ ডায়েরী হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।
##