সাতক্ষীরার ঐতিহ্য ‘প্রাণসায়র খাল’ বাঁচাতে পদযাত্রা..


202 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার ঐতিহ্য ‘প্রাণসায়র খাল’ বাঁচাতে পদযাত্রা..
নভেম্বর ৬, ২০১৮ ইতিহাস ঐতিহ্য ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

 

* ‘প্রাণসায়র বাঁচাই, বাঁচাই সাতক্ষীরা’

 

* জাতীয় নির্বাচনের পরে আবারও পদযাত্রা

 

॥ মনজুর কাদীর ॥

‘প্রাণসায়র বাঁচাই, বাঁচাই সাতক্ষীরা’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা জেলা শহরের মাঝ দিয়ে প্রবাহিত ঐতিহ্যবাহী প্রাণসায়র খাল দূষণমুক্ত করতে শুরু হয়েছে পদযাত্রা। শহরের সাধারণ মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই পদযাত্রার আয়োজন।

আজ মঙ্গলবার ভোরে (তৃতীয় দিনের মত ) সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামালসহ জেলা প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ,সাংবাদিকবৃন্দ এবং সাধারন জনগণ পদযাত্রায় অংশগ্রহণ করেন।
সাতক্ষীরা শহরের কুখরালী ব্রিজ থেকে শুরু করে সুলতানপুর বড়বাজার ব্রিজ পর্যন্ত অংশগ্রহণকারীরা পায়ে হেঁটে প্রাণসায়র খালের দূষণ ও দখলের চিত্র অবলোকন করেন।

সাতক্ষীরার ঐতিহ্যবাহী ‘প্রাণসায়র খাল ’ রক্ষার জন্য ইতোমধ্যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল। আলোচনা শুরু করেছেন এবং স্থানীয় নানা শ্রেণীপেশার মানুষকে সাঙ্গে নিয়ে প্রাণসায়ের খাল (গত রোববার থেকে ) পদব্রজে পরিদর্শন শুরু করেছেন। প্রাণসায়ের খাল খননের মাধ্যমে প্রবাহ ফিরিয়ে আনতে ও দখলদারদের উচ্ছেদ করে তিনি সাতক্ষীরাকে একটি তিলোত্তমা শহরে পরিণত করতে চেয়েছেন। জেলা প্রশাসকের এই উদ্যোগে সাড়া দিয়ে সকলকে সহযোগিতা করা উচিত বলে মনে করেন সাতক্ষীরার সচেতন মহল।

আজ মঙ্গলবার সকালে পদযাত্রা শেষে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল বলেন, প্রাণসায়র খালের পরিবেশগত উন্নয়ন, পানির প্রবাহ নিশ্চিতকরন এবং জনসচেতনা সৃষ্টির মাধ্যমে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারলে এটি জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রে পরিণত হবে। প্রাণসায়র খাল সাতক্ষীরা জেলা শহরের একটি ঐতিহ্য। এই খালের দু’তীর বৃক্ষশোভিত নান্দনিক প্রকল্প গ্রহণের মাধ্যমে শহরের শোভাবর্ধন করতে পারলে মানুষ চিত্তবিনোদন করতে এই খাল পাড়েই আসবে।

তিনি আরও বলেন, প্রাণসায়র খাল দূষনমুক্ত করার ব্যাপারে এই শহরে বসবাসরত শতভাগ মানুষ একমত পোষন করবেন বলে আমার বিশ্বাস। বিধায় সব মহলকে সাথে নিয়েই আমরা প্রাণসায়র খালকে রক্ষা করবো। এ জন্য তিনি নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, সুশিল সমাজের প্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, রাজনীতিবীদসহ সব মানুষের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, কিছুদিন পরেই জাতীয় নির্বাচন। এই নির্বাচনের পরেই আবারও আমরা পদযাত্রা শুরু করবো। এই পদযাত্রায় সাতক্ষীরার জনপ্রতিনিধি , সাংবাদিক, ব্যবসায়ীসহ সকল মহল অংশ নেবেন এবং প্রাণসায়র খাল সুরক্ষায় সহযোগিতা করবেন বলে আমি প্রত্যাশা করি।

আজ সকালে জেলা প্রশাসক যখন সুলতানপুর বড় বাজার ব্রিজের উপর দাঁড়িয়ে কথা বলছিলেন তখন সেখানে শতশত মানুষ জড়ো হয়। জেলা প্রশসকের বক্তব্য শুনে সাধারণ মানুষ এ সময় দুই হাত তুলে জেলা প্রশাসকের এই উদ্যোগকে সমর্থন জানান।

আজ মঙ্গলবার কোকিল ডাকা ভোরে জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল সাতক্ষীরা শহরের কুখরালী বলফিল্ড এলাকায় পৌছান। পরে তিনি তৃতীয় দিনের মতো পদযাত্রা শুরু করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক শাহ আব্দুল সাদী, সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইলতুৎ মিশ, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, জেলা তথ্য অফিসার মোজাম্মেল হোসেন, দৈনিক সাতনদী সম্পাদক হাবিবুর রহমান, দৈনিক আজকের সাতক্ষীরার সম্পাদক মহাসিন হোসেন বাবলু, দৈনিক আজকের সাতক্ষীরার নির্বাহী সম্পাদক তৌহিদুর রহমান ডাবলু, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ,এটিএন বাংলা ও দৈনিক সমকালের স্টাফ রিপোর্টার, ভয়েস অব সাতক্ষীরার সম্পাদক এম কামরুজ্জামান, সিনিয়ার সাংবাদিক শেখ মাসুদ হোসেন, ডা: শুব্রত ঘোষ, সুশিলনের সহকারী পরিচালক মনিরুজ্জামান প্রমুখ।