খুলনা-৬ আসনে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মহা টেনশনে


151 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
খুলনা-৬ আসনে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মহা টেনশনে
নভেম্বর ৮, ২০১৮ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

*বসে নেই জাতীয়পার্টিও

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ ::

খুলনা-৬ আসনে একাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের জন্য আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মহা টেনশনে রয়েছে। আওয়ামীলীগের ৫জন প্রার্থী দীর্ঘদিন ধরে দান-অনুদান নিয়ে ব্যাপক গণসংযোগ সহ প্রচার-প্রচারণা অব্যাহত রাখলেও শেষ মুহুর্তে তাকিয়ে আছে কেন্দ্রের দিকে। বসে নেই জোট প্রার্থী জাতীয়পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা শফিকুল ইসলাম মধু ও মোস্তফা কামাল জাহাঙ্গীর।

জানা গেছে, খুলনার কয়রা-পাইকগাছা নিয়ে খুলনা-৬ সংসদীয় আসন। যা একটি পৌরসভা ও ১৭টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ২৪ হাজার ৮২৯জন। যার মধ্যে, কয়রায় ১ লাখ ৩৭ হাজার ৫২৮জন ও পাইকগাছায় ১ লাখ ৮৭ হাজার ৩০১জন। দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামীলীগের নবীন-প্রবীণ মিলে ৫জন মনোনয়ন প্রত্যাশী কয়রা-পাইকগাছার বিভিন্ন জায়গায় প্রতিযোগিতামূলক প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এর মধ্যে রয়েছেন, বর্তমান সংসদ সদস্য এ্যাডঃ শেখ মোঃ নুরুল হক, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাডঃ সোহরাব আলী সানা, সাবেক ছাত্রনেতা আকতারুজ্জামান বাবু ও ইঞ্জিনিয়ার প্রেমকুমার মন্ডল। সকল প্রার্থীরা মনোনয়ন প্রত্যাশায় নৌকা প্রতীক পেতে নিজ পক্ষের দলীয় নেতাকর্মী নিয়ে গণসংযোগ ও বিভিন্নভাবে শোডাউন অব্যাহত রেখেছে। বিভিন্ন সময় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়ও হয়েছে। সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড তুলে ধরে নিজেদেরকে তুলে ধরবার চেষ্টা করছে। এদিকে, কোন কোন প্রার্থী প্রতিপক্ষের (স্ব-দলের) বিরুদ্ধে সমালোচনাও কম করছে না। জোটগত নির্বাচন হলে জাতীয়পার্টি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সে ক্ষেত্রে জাপা থেকে প্রার্থী হলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। জাতীয়পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তফা কামাল জাহাঙ্গীর পাইকগাছা-কয়রার এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচারণায় ছুটে চলেছেন। তাদের প্রচার-প্রচারণা আওয়ামীলীগের থেকে কোন অংশে কম নয়। এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ও তাদের পক্ষীয় দলীয় নেতারা জানান, তাদের পক্ষের প্রার্থীই মনোনয়ন পাচ্ছেন বলে তারা আশাবাদী। বর্তমান সংসদ সদস্য এ্যাডঃ শেখ মোঃ নুরুল হক জানান, তিনি যেভাবে এলাকায় উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন এবং তার সাথে দলীয় নেতাকর্মীরা থাকায় তিনি আগামী নির্বাচনী মনোনয়ন পাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এ্যাডঃ সোহরাব আলী সানা দল তাকে মনোনীত করলে তিনি নির্বাচন করবেন। বিএমএ’র দপ্তর সম্পাদক ডাঃ শেখ মোহাঃ শহিদউল্লাহ জানান, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমানের বিকল্প কোন প্রার্থী নেই। সব মিলে দেখা গেছে, সকল মনোনয়ন প্রত্যাশীরা রয়েছে মহা টেনশনে।