দরিদ্র মানুষের জন্য মানসম্মত ও গণমূখী স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে হবে : জেলা প্রশাসক


74 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দরিদ্র মানুষের জন্য মানসম্মত ও গণমূখী স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে হবে : জেলা প্রশাসক
নভেম্বর ৮, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

॥ আব্দুর রহমান ॥

সাতক্ষীরায় প্রমাণভিত্তিক পরিকল্পনা বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও ইউনিসেফ’র সহযোগিতায় এ কর্মশালায় স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক শাহ আব্দুল সাদীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল।

তিনি বলেন, ‘ইউনিয়ন পর্যায়ে মানসম্মত ও গণমূখী স্বাস্থ্য সেবা ও সুযোগগুলোতে দরিদ্র মানুষের অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। মানসম্মত স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করলে ইতিবাচকভাবে প্রভাব করবে। এক্ষেত্রে উপজেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। স্থায়ীত্বশীলতা স্থানীয় সম্পদ সমাবেশীকরণের মাধ্যমে প্রকল্প পরবর্তী কর্মসূচি চলমান রাখতে হবে। দৃশ্যমান ফলাফল জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে নীতি নির্ধারকদের মাঠ পর্যায়ের দৃশ্যমান ও প্রমাণভিত্তিক ফলাফল প্রদর্শনের মাধ্যমে নীতিমালা পরিবর্তনের জন্য প্রভাবিত করতে হবে। এাডভোকেসীর জন্য মিডিয়া মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে নীতিনির্ধারণে পর্যায়ে তদ্বির ও এ্যাডভোকেসী করার জন্য স্থানীয় সুশীল সমাজ/ মিডিয়ার প্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করতে হবে।’ বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা. তাওহীদুর রহমান, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মহসীন আলী, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অনিন্দিতা রায়, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ প্রমুখ।

কর্মশালায় অংশ নেন জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তারাময়ী মুখার্জী, প্রফেসর আব্দুল হামিদ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রুহুল আমিন, সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আমজাদ হোসেন, জেলা শিশু একাডেমির লাইব্রেরিয়ান রফিকুল ইসলাম, সিলভার জুবলী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চায়না ব্যানার্জী, পৌর কাউন্সিলর ফারহা দিবা খান সাথী, জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক হারুন অর রশীদ, এনজিও প্রতিনিধি ফিরোজ রহমান, দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আব্দুর রহমান প্রমুখ।

সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ইউনিসেফ’র প্রতিনিধি নাশিদা আকবার।

##