‘সাতক্ষীরা-৪ আসনে গুরু শিষ্যের লড়াই দেখতে চাই’


671 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘সাতক্ষীরা-৪ আসনে গুরু শিষ্যের লড়াই দেখতে চাই’
নভেম্বর ৮, ২০১৮ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

*সাতক্ষীরার শ্যামনগরে যুক্তফ্রন্টের প্রথম সমাবেশে বক্তারা বলেন,সাতক্ষীরা-৪ আসনে গুরু শিষ্যের লড়াই দেখতে চাই।

॥ বিশেষ প্রতিনিধি ॥

ঢাক ঢোল পিটিয়ে ব্যপক প্রচারনা চালানো হলেও সাতক্ষীরার শ্যামনগরে যুক্তফ্রন্টের প্রথম সমাবেশে যোগ দেন নি বিকল্পধারার চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। এই সমাবেশে ঢাকা থেকে ফ্রন্টের আরও যে সব নেতার আসার কথা ছিল তাদেরও কেউই আসেন নি। ফলে বৃহস্পতিবার বিকালে সাবেক সাংসদ ও বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য এইচ এম গোলাম রেজা সভাপতির বক্তব্য দিয়ে শেষ করেন মহাসমাবেশ।


তবে মহাসমাবেশে গোলাম রেজা বলেন শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে হেলিকপ্টার উড়তে দেওয়া হয়নি। এটা একটি ষড়যন্ত্র দাবি করে তিনি বলেন আগেও দুই বার হেলিকপ্টার নিয়ে তার শ্যামনগর আসার কথা ছিল। তখনও ষড়যন্ত্রের মুখে তা বন্ধ হয়ে যায়। গোলাম রেজা আরও বলেন মানুষ এখন শান্তিতে ঘুমাতে পারে না। তাদেরকে শান্তি বাঁচতে দেওয়া হয়না। ভোটে আসুন , ষড়যন্ত্রের দরকার কি উল্লেখ করে তিনি বলেন আজ সন্ধ্যা ৭ টার পর থেকে শ্যামনগর কালিগঞ্জে কোনো অত্যাচার করা চলবে না। ডিসেম্বরে ভোট তাই ফাইনাল খেলার জন্য প্রস্তুত থাকুন। তিনি বলেন কালিগঞ্জ শ্যামনগরে ফাইনাল টীমের খেলা হবে। ঢাকা থেকে নেতাদের আসতে না দেওয়ার ষড়যন্ত্রের কথা আবারও উল্লেখ করে তিনি বলেন ‘ তাদের ভয় দেখিয়ে বলা হয়েছে শ্যামনগরে গেলে গুলি হবে, আন্দোলন হবে , তাই যাবেন না’। এ কথা শুনে যুক্তফ্রন্ট ও বিকল্পধারার চেয়ারম্যান ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর উদ্ধৃৃতি দিয়ে গোলাম রেজা বলেন ‘ তিনি বলেছেন সিডিউল ঘোষনার পর চার দিন শ্যমনগরে থেকে আমি প্রচারনা চালাতে চাই । তুমি বলে দিও’।


গোলাম রেজা বলেন মহাজোট করেছিলাম, সফল হয়েছি। এবার যুক্তফ্রন্ট করছি , সফল হবো। ভয় পেলে জনগনের কাছে আসবেন কিভাবে এই প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন মানুষের নিরাপত্তা দিতে হবে। জনগনের কাছ থেকে যারা অর্থ নিয়েছে তাদের সে অর্থ ফেরত দিতে হবে। না দিলে জনগন ছাড়বে না। আটটি দল নিয়ে আমরা জোট করেছি । এই জোট নিয়ে ভোট করবো। প্রধানমন্ত্রীর সাথে সংলাপে আমি সাত দফা তুলে ধরেছিলাম। এর মধ্যে ছিল শ্যামনগরের সব মামলা তুলে নিতে হবে। তিনি রাজী হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতু করেছেন। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপন করেছেন। তিনি বলেন ২০১৪ তে সংসদ সদস্য হতে পারতাম। আমিই রওশন এরশাদকে বিরোধী দলে অন্তর্ভূক্ত করেছিলাম বলে উল্লেখ করেন তিনি।


শ্যামনগর বাসটার্মিনাল মাঠে অনুষ্ঠিত সমাবেশে হাফেজ আবদুর রশীদ ‘ সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদকে উদ্দেশ্য করে বলেন ‘ আপনি রংপুরের মানুষ। বয়স হয়েছে। বসন্তের কোকিল। নিশ্চয়ই এখানে নির্বাচন করতে এসে ভুল করবেন না’। অন্য এক নেতার নাম উল্লেখ না করেই তিনি বলেন তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে এমন ঘোষনার জন্য ১৫ লাখ এবং জমা দেওয়া পর্যন্ত এক কোটি টাকা দেবেন তিনি। রতনপুর ইউপি সদস্য মুফতি মাহফুজউল্লাহ সুজন সাবেক এমপি রেজাকে শান্তির প্রতীক আখ্যায়িত করে বলেন ‘ রেজা মানে দুটি কথা, সততা আর মানবতা’। মাঠে খেলতে আসুন হেলিকপ্টার বন্ধ করে কী লাভ। তিনি বলেন আমরা শ্যামনগর কালিগঞ্জ আসনে গুরু শিষ্যের লড়াই দেখতে চাই। সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান কেএম মোশাররফ হোসেনের মেয়ে সাফিয়া পারভিন বলেন আমার বাবা হত্যার বিচার পেতে গোলাম রেজাকে এমপি হিসাবে দেখতে চাই। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন আনসার ভিডিপির সাবেক কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন, কাশিমারির মুজিবর রহমান, কৃষ্ণনগরের আইউব হোসেন , এমএ গনি , হাফেজ বেল্লাল প্রমুখ।
উল্লেখ্য যে বৃহস্পতিবারের সমাবেশে যুক্তফ্রন্ট ও বিকল্পধারার চেয়ারম্যান একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর ছাড়াও যোগ দেওয়ার কথা ছিল মহাসিচব মেজর ( অবঃ) মান্নান, প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম সরোয়ার মিলন, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী নাজিম উদ্দেন আল আজাদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী শমসের মবিন চৌধুরী, বিকল্পধারা ও যুক্তফ্রন্ট যুগ্ম মহাসচিব মাহি বি চৌধুরী , বাংলাদেশ ন্যাপ এর চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গনিসহ বেশ কয়েকজন কেন্দ্রিয় নেতার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাদের কেউই আসেন নি।