পাইকগাছা সংবাদ ॥ ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচী পরিদর্শন


106 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
পাইকগাছা সংবাদ ॥ ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচী পরিদর্শন
নভেম্বর ১৪, ২০১৮ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ঃ পাইকগাছা উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচী পরিদর্শন করেছেন। মঙ্গলবার সকালে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ডাঃ মোঃ আব্দুল আউয়াল, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মনিরুল ইসলাম সিদ্দিকী ফিরোজ ও খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা তরুণ বালা গদাইপুর ইউনিয়নের নতুন বাজারস্থ চাল বিতরণ কর্মসূচী পরিদর্শন করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য জগন্নাথ দেবনাথ, শিক্ষক শেখ সোহেল আহম্মেদ, ডিলার শেখ মাসুদুর রহমান, মোস্তাক আলী শেখ ও আছাদুল মোড়ল।
##

পাইকগাছায় ভগ্নিপতি ও শ্যালকের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ
পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ঃ পাইকগাছায় এবার ভগ্নিপতির বিরুদ্ধে প্রতারণা ও মামলা দিয়ে হয়রানী করার অভিযোগ করেছেন শ্যালক ও তার পরিবার। এর আগে শ্যালকের বিরুদ্ধে অনুরূপ অভিযোগ করেন ভগ্নিপতি। পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যা ও আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত নানা বিষয়কে কেন্দ্র করে শ্যালক ও ভগ্নিপতি একে অপারের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করে চলেছেন। গদাইপুর ইউনিয়নের মেলেকপুরাইকাটীর মৃত মীর আকবার আলীর ছেলে মীর শাহীন হোসেন জানান, আব্দুল মজিদ গাজী আমার ভগ্নিপতি। সে পরিবার নিয়ে আমাদের জমিতেই বসবাস করছে। হঠাৎ করে তার টাকার প্রয়োজন হয়। মর্গেজ ছাড়া ব্যাংক কোন লোন দেয় না এ জন্য সে ইসলামী ব্যাংকের আমার সিসি লোন থেকে মর্গেজ দিয়ে তাকে আড়াই লাখ টাকা লোন দেই। ব্যাংকে মর্গেজ রাখা বাবদ বোন ডকুমেন্ট হিসাবে আমার কাছ থেকে স্বাক্ষরিত সাদা ষ্ট্যাম্প নেয়। পরে ঋণের টাকা পরিশোধে তালবাহানা করলে তাদেরকে চাপ দিলে আমার ভগ্নিপতি উক্ত ষ্ট্যাম্প ব্যবহার করে আমার বিরুদ্ধে আদালতে হয়রানী মূলক মামলা করেছে। শাহীনের স্ত্রী তফুরা বেগম জানান, মজিদ একজন আলোচিত মামলাবাজ। এলাকাবাসী তার মামলার কারণে অতিষ্ঠ। সে আমার পরিবারকে জড়িয়ে ৪টি মামলা করেছে। শাহীনের মা জরিনা বেগম জানান, জামাই আমার ছেলের কাছে কোন টাকা পাবে না। সে হয়রানী করতেই আমাদেরকে জড়িয়ে মামলা করেছে। এই বৃদ্ধ বয়সে আমাকে আদালতে যেতে হয়। এটা অনেক কষ্টের। এমনকি সে আমাদেরকে মামলা দিয়ে ভিটে ছাড়া করবে বলে হুমকিও দিচ্ছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে এ ধরণের হয়রানী থেকে রেহায় পেতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন শাহীনের পরিবার। এরআগে শাহীনের বিরুদ্ধে আদালতে সিআর ৭৪১/১৮ মামলা করেন ভগ্নিপতি মজিদ।
##

পাইকগাছার শিববাটী ব্রীজের বাইপাস সড়কের সরকারি জায়গায় গড়ে উঠেছে অবৈধ স্থাপনা
পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ঃ পাইকগাছার শিববাটী ব্রীজের দক্ষিণপাশের বাইপাস সড়কের পাশের সরকারি জায়গায় গড়ে উঠেছে অবৈধ স্থাপনা। ফলে একদিকে যেমন ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে বনায়ন অপরদিকে নষ্ট হচ্ছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। এ ব্যাপারে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে কর্তৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন এলাকাবাসী। সূত্রমতে, পাইকগাছা-কয়রা সড়কের কপোতাক্ষ নদের উপর নির্মিত শিববাটী ব্রীজের দক্ষিণ পাশের বাইপাস সড়কের দুই পাশে সরকারি জায়গার উপর গড়ে উঠেছে অসংখ্য অবৈধ স্থাপনা। কর্তৃপক্ষের নজরদারী না থাকায় যে যার ইচ্ছেমত স্থাপনা স্থাপন করে চলেছেন।

কেউ করেছেন মটরসাইকেল ষ্ট্যান্ড, কেউ আবার করেছেন ইজিবাইক ও নছিমন ষ্ট্যান্ড। শাহীন, ইদ্রিস, রব গাইন সহ অনেকেই আবার টি স্টল সহ বিভিন্ন ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। অনেকেই অভিযোগ করেছেন রাতের আঁধারে সামাজিক বনায়নের গাছ নষ্ট করে এ সব স্থাপনা গড়ে উঠছে। এ সব অবৈধ স্থাপনা দ্রুত উচ্ছেদ করা না হলে এরা এক সময় স্থায়ীভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়ে যাবে। আর এতে সরকারি জায়গা বেদখল হওয়ার পাশাপাশি সামাজিক বনায়নটি ধ্বংস হয়ে যাবে। এ ব্যাপারে ব্যবসায়ী শাহীন জানান, গত ১ মাস আগে তিনি ঘর নির্মাণ করে ব্যবসায়ী কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। সহকারী কমিশনার (ভূমি) ডাঃ মোঃ আব্দুল আউয়াল জানান, সরকারি জায়গার উপর অবৈধ স্থাপনা স্থাপন আইনগত দন্ডনীয় অপরাধ। যদি কেউ এ ধরণের অবৈধ পন্থায় স্থাপনা গড়ে তুলে থাকেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
###

পাইকগাছা আইনজীবী সমিতির বার্ষিক নির্বাচনে ১৯ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ
পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ঃ পাইকগাছা আইনজীবী সমিতির বার্ষিক সাধারণ নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিল ও যাচায়-বাছায় সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল বুধবার মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিনে ১১ পদের বিপরীতে ১৯ প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র দাখিল করলে একই দিন যাচায়-বাছায় শেষে নির্বাচন কমিশন প্রত্যেক প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষনা করেন। এর মধ্যে একক প্রার্থী থাকায় ক্রীড়া ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে এটিএম নাদিরুজ্জামানকে নির্বাচিত ঘোষনা করেছেন নির্বাচন কমিশন। এদিকে সভাপতি একটি পদের বিপরীতে তিনজন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। বৈধ প্রার্থীরা হলেন বর্তমান সভাপতি এড. পঙ্কজ কুমার ধর, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের জেলা সহ-সভাপতি এড. অজিত কুমার মন্ডল এবং এড. প্রশান্ত কুমার মন্ডল। সহ-সভাপতি দুই পদের বিপরীতে এড. কামরুল ইসলাম, এড. আবুল কালাম আজাদ ও এড. আমজাদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদকের একটি পদের বিপরীতে বর্তমান সম্পাদক এড. শেখ তৈয়ব হোসেন নূর ও এড. দিপঙ্কর কুমার সাহা, যুগ্ম-সম্পাদকের একটি পদে এড. অনাদি কৃষ্ণ মন্ডল ও এড. শিবু প্রসাদ সরকার, ক্রীড়া ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে একক প্রার্থী হিসেবে এড. এটিএম নাদিরুজ্জামান, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদকের একটি পদে এড. মোঃ বেলাল উদ্দীন ও এড. সাঈদুর রহমান মিঠু, লাইব্রেরী সম্পাদকের একটি পদে এড. রেহেনা পরভিন ও এড. সঞ্জয় কুমার মন্ডল মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এছাড়া সদস্য ৩টি পদে এড. আব্দুল মালেক, এড. সমারেশ মন্ডল, এড. সরদার ছুবেহ্ সাদিক ও এড. অরুন কুমার মন্ডল মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। আগামী ১৮ নভেম্বর প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন এবং ২৫ নভেম্বর সকাল ৮টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে আইনজীবি সমিতি ভবনে ৭০ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন বলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এড. চিত্ত রঞ্জন সরকার জানিয়েছেন। নির্বাচনে সহকারী কমিশনার হিসেবে আছেন এড. সুকান্ত কুমার রায় ও এড. মোঃ নাছির উদ্দীন।

 

খুলনা-৬ আসনে বিএনপি’র মনোনয়ন ফরম নিলেন পিন্টু

কপিলমুনি প্রতিনিধি ঃ
আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) আসন থেকে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনলেন খুলনা জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ শামছুল আলম পিন্টু।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭ টায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে তিনি মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেন।
শেখ শামছুল আলম পিন্টু মুঠোফোনে বলেন, ‘খুলনা-৬ নির্বাচনী এলাকার গণমানুষের কাছে দোয়া চাইছি। দল মনোনয়ন দিলে নির্বাচন করতে চাই।’ এর আগে বিএনপি থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন খুলনা জেলা বিএনপি’র সভাপতি এড. শফিকুল আলম মনা ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক।’