সাংবাদিক কার্যালয় ও প্রাণকেন্দ্র লুটের প্রতিবাদে শ্যামনগরে মানববন্ধন


110 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাংবাদিক কার্যালয় ও প্রাণকেন্দ্র লুটের প্রতিবাদে শ্যামনগরে মানববন্ধন
ডিসেম্বর ১, ২০১৮ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

আমিনা বিলকিস ময়না ::

দেশ টিভি- বিডি নিউজের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি’র সাংবাদিক কার্যালয় ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ‘প্রাণকেন্দ্র’ লুটের প্রতিবাদে সাতক্ষীরার শ্যামনগরের সুন্দরবন সাংবাদিক ক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার বিকাল ৪টায় মুন্সিগঞ্জ বাসস্টান্ডে সুন্দরবন সাংবাদিক ক্লাব এ মানববন্ধন সমাবেশের আয়োজন করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান জি এম আব্দুর রউফ, লিডার্স এর ভারপ্রাপ্ত পরিচালক অসিত মন্ডল, সুন্দরবন সাংবাদিক ক্লাবের উপদেষ্টা মো: জাহাঙ্গীর আলম, রিলিপ ইন্টার ন্যাশনাল প্রতিনিধি দীপংকর বিশ্বাস, সামস্ এর প্রোগ্রাম অফিসার সঞ্জয় মাঝী, সাংস্কৃতিক কর্মী মো: জাহাঙ্গীর হোসেন, ত্রিদীপ সরদার, দীপংকর সরদার, মুন্সিগঞ্জ ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম, এছাড়াও জিএম ফারুক হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, আব্দুল্যা আল মামুন, দীপক মিস্ত্রী, আশিকুর রহমান, নজরুল ইসলাম প্রমুখ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।
মানববন্ধন সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সুন্দরবন সাংবাদিক ক্লাবের সভাপতি আয়ুব আলী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক পিযুষ বাউলিয়া পিন্টু।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, গণমাধ্যম কার্যালয়ে যারা হামলা ও লুট করে তারা মানবতার দুশমন। সাংবাদিক কার্যালয়ে হামলা ও লুটের ধৃষ্টতা দেখানোর ঘটনা এটি একটি দুঃসাহস। অবিলম্বে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে এবং দোষীদের কাছ থেকে ক্ষতিপূরণ নিতে হবে। এক দশ দিন পেরিয়ে গেলেও দোষী সোনাচোরাকারবারী বুলু ও তার সন্ত্রাসীরা শাস্তির আওতায় না আসায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। চিহ্নিত একটি সোনাচোরাকারবারী ও মৌলবাদের মোড়ল সাংবাদিক কার্যালয়ে লুট করে পার পেয়ে যাবে ব্যাপারটা এতোটা সহজ নয়। সোনাচোরাকারবারী কতৃক এ লুটের প্রতিবাদে চলমান আন্দোলন সর্বত্র ছড়িয়ে দেয়ার ব্যাপারে অঙ্গীকার করেন সকল সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।
উল্লেখ্য গত ২০ নভেম্বর মঙ্গলবার সাতক্ষীরার বনানী মার্কেটে অবস্থিত সাতক্ষীরায় সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ‘প্রাণকেন্দ্র’ ও দেশ টিভি- বিডি নিউজের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি শরীফুল্লাহ কায়সার সুমনের কার্যালয়টি তালাবদ্ধ থাকা অবস্থায় ভেঙে লুট করে নিয়ে যায় স্থানীয় সন্ত্রাসী ও চিহ্নিত সোনাচোরাকারবারী কামরুজ্জামান বুলু ও তার সন্ত্রাসীরা। মার্কেট মালিক আব্দুল জলিল ও বুলু’র মধ্যে বিরোধ থাকলেও এর সাথে প্রাণকেন্দ্রের কোন বিরোধ ছিল না। বিনা কারণে এধরনের ঘটনা ঘটার প্রতিবাদে সাতক্ষীরার সাংবাদিকরা ও সাংস্কৃতিক সংগঠকরা এর প্রতিবাদে নেমে পড়ে।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, সোনাচোরাকারবারির সাথে কোন সাংবাদিক আপোষ করতে পারে না। প্রশাসন এ সোনা চোরকারবারীর বিরুদ্ধে দ্রুত শাস্তিমুলক ব্যবস্থা ও ক্ষতিপুরণ না করে তবে সাংবাদিকদের এ আন্দোলন তীব্র থেকে তীব্রতর হবে।
প্রসঙ্গত বিডি নিউজ, দেশ টিভি প্রতিনিধি’র ব্যক্তিগত কার্যালয় ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান প্রাণকেন্দ্র ভাংচুর করে জিনিসপত্র লুটপাট করে নিয়ে গেছে। ভবনের কক্ষটি ভাড়া প্রদান করেন পলাশপোলস্থ আব্দুল জলিল। আব্দুল জলিলের সাথে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মঙ্গলবার সকালে আলবারাকা শপিং মলের মালিক কামরুজ্জামান বুলু ও তার বাহিনী নিয়ে বনানী মার্কেটের ছাদ ভেঙে ক্যামেরা, ল্যাপটব, হারমোনিয়াম, তবলা, বয়া, ট্রাইপড, চেয়ারসহ মুল্যবান জিনিস দিন দুপুরে লুট করে নিয়ে যায়। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মমতাজ বাপীসহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। উল্লেখ্য এই কার্যালয়েই শিল্প সাহিত্যসহ বিডি নিউজ পরিচালিত হ্যালো’র শিশু সাংবাদিকতার বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হয়।
##