আপিলে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন যারা


123 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আপিলে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন যারা
ডিসেম্বর ৬, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

একাদশ সংসদ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার যাচাই-বাছাইয়ে বাতিল হওয়া মনোনয়নপত্রের ওপর শুনানি শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে নির্বাচন কমিশনের অস্থায়ী এজলাসে এ শুনানি চলছে।

সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী নবাব মো. শামছুল হুদার মাধ্যমে শুনানি শুরু হয়। শুনানির প্রথমেই তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়।

এরপর আপিল আবেদনের সিরিয়াল অনুযায়ী একে একে প্রার্থীদের শুনানি গ্রহণ করা হচ্ছে।

বগুড়া-৭ আসনে বিএনপি প্রার্থী মোরশেদ মিল্টন ও পটুয়াখালী-৩ আসনে বিএনপি প্রার্থী গোলাম মওলা রনির মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

আরও যাদের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে– ঢাকা-২০ আসনে বিএনপি তমিজ উদ্দিনের মনোনয়নপত্র, সাতক্ষীরা-২ আসনে আফসার আলীর মনোনয়নপত্র, কিশোরঞ্জ-২ আসনে মেজর (অব) মো. আখতারুজ্জামানের মনোনয়ন, চাপাইনবাগঞ্জ-২ আসনের মো. তৈয়ব আলীর মনোনয়নপত্র, ঢাকা-১ আসনে খন্দকার আবু আশফাকের মনোনয়নপত্র, মোহাম্মদ শাহজাহান পটুয়াখালী-৩ আসন, সুমন সন্যামত পটুয়াখালী-১, জহিরুল ইসলাম মিন্টু মাদরীপুর-১ আসন, বৈধ। এস এম খলিলুর রহমান ঠাকুরগাঁও-৩ বাতিল। বৈধতা পেয়েছেন ফজলুর রহমান জয়পুরহাট-১ থেকে।

আপিলে যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে– ফেনী-১ এর মিজানুর রহমানের মনোনয়নপত্র, কিশোরগঞ্জ-৩ আসনের ড. মিজানুুল হকের মনোনয়নপত্র, ময়মনসিংহ-৪ আসনের আবু সাইদ মহিউদ্দিনের মনোনয়নপত্র, ময়মনসিংহ-২ আসনে মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে মো. এমদাদুল হকের, খুলনা-২ ও নাটোর-১ আসনের এস এম এরশাদুজ্জামান ও শ্রী বীরেন্দ্র নাথ সাহার মনোনয়নপত্র, ঢাকা-১ ও বগুড়া-৩ আসনের মো. আইয়ুব খান ও মো. আব্দুল মুহিতের মনোনয়নপত্র, আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম বগুড়া-৪ আসন, হবিগঞ্জ-২, ঢাকা-১৪, সাতক্ষীরা-১ আসনের এস এম মুজিবুর রহমানের মনোনয়নপত্র।

আপিলের ক্রমিক নম্বর ১ থেকে ১৬০ নম্বর পর্যন্ত আজ বৃহস্পতিবার শুনানি হবে। শুক্রবার ১৬১ থেকে ৩১০ নম্বর পর্যন্ত আপিল শুনানি হবে। শুনবেন। শেষ দিন শনিবার বাকি সব আবেদন শোনা হবে।

শুনানির জন্য নির্দিষ্ট কোনো সময় নেই। যতক্ষণ সময় লাগছে শুনানি ততক্ষণ হচ্ছে। আপিলের সঙ্গে সঙ্গে তাৎক্ষণিক রায়ও দেওয়া হচ্ছে।

##