দুদকের মামলায় গ্রেফতারকৃত সাব রেজিস্ট্রার লুৎফরের জামিন


1211 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দুদকের মামলায় গ্রেফতারকৃত সাব রেজিস্ট্রার লুৎফরের জামিন
মে ১৬, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

 

নাজমুল হক:
জাল ও ভূয়া রেকর্ড পত্রের ভিত্তিতে জমি রেজিস্ট্রি করার অভিযোগে সাতক্ষীরা সদর সাব রেজিস্ট্রার লুৎফর রহমান মোল্যার জামিন দিয়েছে আদালত। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়ালের আদালতের বিচারক মহিবুল হাসান তাকে জামিন প্রদান করেন। তবে বহুল আলোচিত দলিল লেখক একেএম মুনসুর রহমানকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার আহসান কবির চলতি বছরের ২০ এপ্রিল  সুলতানপুর এলাকার আফজাল হোসেনের সাড়ে পাঁচ শতক জমি একটি জাল ও ভূয়া রেকর্ড পত্রের ভিত্তিতে রেজিস্ট্রি করা হয়েছে বলে সদর থানায় একটি অভিযোগ করেন। সদর থানা অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহন করে আদালতে প্রেরণ করেন। আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য দুদকের কাছে হস্তান্তর করেন। ৫০ লাখ টাকার মূল্যের ওই জমি দলিল লেখক একেএম মুনসুর রহমান ও সদর সাব রেজিস্ট্রার লুৎফর রহমান মোল্যার সহযোগিতায় জাল ও ভূয়া রেকর্ড পত্রের মাধ্যমে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার নকিপুর গ্রামের রবিউল ইসলাম ক্রয় করেন। মামলার প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়ার পর সদর সাব রেজিস্ট্রার ও দলিল লেখককে গ্রেফতার করা হয়। দুদক কর্মকর্তার আরো জানান, রোববার বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন অভিযুক্ত দুই ব্যক্তি রেজিস্ট্রি অফিস এলাকায় অবস্থান করছেন। এ সংবাদের ভিত্তিতে সহকারী পরিচালক এস এম শামীম ইকবালের নেতৃত্বে উপ পরিদর্শক শ্যামল সেন, মনিরুজ্জামান ও মিজানুর রহমান অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করেন। সোমবার সকালে দুই আসামীকে আদালতে হাজির করা হয়। বেলা সাড়ে ১১টায় অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়ালের আদালতে হাজির করা হলে বিচারক চার্জ গঠনের আগ পর্যন্ত তার জমিন প্রদান করেন।

সাব রেজিস্ট্রার লুৎফর রহমান মোল্যা মাদারীপুর জেলা সদরের মাষ্টার কলোনীর আব্দুস সাত্তার মোল্যার ছেলে। তবে দলিল লেখক একেএম মুনসুর রহমানের পক্ষে কোন আইনজীবী না থাকায় তাকে কারাগারে প্রেরণ করে।
Untitled-111
সূত্র আরো জানায়, বহুল অপকর্মের হোতা দুদকের মামলায় মুনসুর রহমানকে আটক করায় রেজিস্ট্রি পাড়া সরগরম হয়। তার বিরুদ্ধে বহু জালিয়াতির অভিযোগ আছে। দেবহাটার টিকিট গ্রামের ঐ ব্যক্তি শহরের রেজিস্ট্রি অফিসের পাশে ৫ তলা বিল্ডিং তৈরি করেছে। এর আগেও তিনি একাধিক মামলায় আটক হন। রেজিস্ট্রি অফিসের বহু অপকর্মের হোতা বলে একাধিক সূত্র জানায়। সম্প্রতি বাকাল গ্রামের নূর জাহানের জালিয়াতির মামলায় আটক হন মুনসুর। তবে দুদক সূত্র জানায়, মামলার বাকী আসামীদের ধরতে তারা কাজ করছে।
সাতক্ষীরা দুদকের পিপি এড. আসাদুজ্জামান দিলু জানান, জামিন অযোগ্য ধারায় সরকারি চাকরি করায় সাব রেজিস্ট্রার লুৎফর রহমান মোল্যার জামিন প্রদান করে আদালত। ###